‘সত্যিকারের’ নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠন করতে হলে সব দলমতের মানুষদের নিয়ে ‘জাতীয় সরকার’ গঠন করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘সত্যিকারের নির্বাচন কমিশন করতে হলে জাতীয় সরকার গঠন করতে হবে। আওয়ামী লীগকে বাদ দিয়ে জাতীয় সরকার নয়। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শেখ রেহেনা, তার ছেলে, তোফায়েল আহমেদ, মতিয়া চৌধুরী, বিএনপির যারা আছেন তাদের নিয়ে এবং আমরা যারা সাধারণ মানুষ আছি তাদের নিয়ে জাতীয় সরকার করেন।’ 

সোমবার শিশু কল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে মহান মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক এম এ জি ওসমানীর ১০৩তম জন্মবার্ষিকী স্মরণ উপলক্ষে ‘মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বিতর্ক ও তার প্রভাব’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় স্মরণ মঞ্চ এ আলোচনা সভার আয়োজন করে। 

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘সামনের নির্বাচন নিয়ে সরকার নতুন পরিকল্পনা করছে। কারও ভোট দিতে হবে না। দেশের গণতন্ত্রকে তারা হত্যা করেছে। সামনে হয়ত কবর দিবে।’

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘এই সরকার ক্ষমতায় থাকলে এদেশে আর কোনোদিন কোনো সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে নির্বাচন কমিশন কেনো প্রধান বিচারপতিরও ক্ষমতা নাই। তিনি যেভাবে চাইবেন সেভাবেই হবে। ’

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন করতে দিবে না। তারা সেরকম বিচার ব্যবস্থা গঠন করতে দিবে না। আওয়ামী লীগ সেরকম নির্বাচন করতে দিবে না। সে কারণেই একটার পর একটা ষড়যন্ত্র করছে, একটার পর একটা বুদ্ধি আটছে, ইস্যু তৈরি করছে।’ 

কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যখন জিয়াউর রহমানের বিরুদ্ধে বিষোদাগার করেন, তখন ৩২টি চ্যানেলে তা প্রচার করা হয়। আর বিএনপির নেতারা যখন এর প্রতিবাদ করেন, তখন তা করা হয় জুম মিটিংয়ে। এভাবে চলতে পারে না।’

ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূর বলেন, ‘জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো থেকে মানুষের দৃষ্টি অন্যদিকে নিতেই জিয়ার কবর স্থান থেকে শুরু করে তার মুক্তিযুদ্ধের অবদান নিয়ে বিতর্ক তৈরি করা হয়েছে। এটা ইচ্ছাকৃতভাবে করা হচ্ছে। এর পিছনে দুরভিসন্ধি আছে।’

সংগঠনটির সভাপতি প্রকৌশলী মনিরুজ্জামান দেওয়ান মানিকের সভাপতিত্বে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের মিডিয়া উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।