সিলেটের সীমান্তবর্তী জৈন্তাপুর উপজেলায় জমি-সংক্রান্ত বিরোধের জেরে দেবরের ছুরিকাঘাতে খুন হয়েছেন ভাবি। এ সময় তাকে রক্ষা করতে গিয়ে আহত হয়েছেন ভাশুর। পুলিশ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দেবর ও তার স্ত্রীকে আটক করেছে। বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের ফরফরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত সোনারা বেগম (৫০) ওই গ্রামের ওয়াহাব আলীর স্ত্রী।

আটককৃতরা হলো- ওমর আলীর ছেলে ও নিহতের দেবর আব্দুল করিম ও তার স্ত্রী শিরিনা বেগম।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাড়ির জমি নিয়ে তাদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। বৃহস্পতিবার সকাল ৬টার দিকে সোনারা বেগম তার বাড়ির অংশ থেকে বাঁশ কাটতে যান। ওই সময় দেবর আব্দুল করিম বাঁশ কাটতে বাধা দেয়। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে আব্দুল করিম ধারালো ছুরি নিয়ে সোনারা বেগমের মাথা ও ঘাড়ে একাধিক আঘাত করে। ঘটনাস্থলেই সোনারা মারা যান। হামলা থেকে রক্ষা করতে ভাশুর তোরাব আলী এগিয়ে গেলে তিনিও ছোট ভাই করিমের ছুরিকাঘাতে আহত হন। তাকে উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জৈন্তাপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম দস্তগীর আহমদ জানান, পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে দু'জনকে আটক করেছে। লাশ উদ্ধার করে হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।