আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে অশুভ অপশক্তি ও উগ্র সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী কুমিল্লাসহ ১০ থেকে ১২টি জায়গায় মন্দিরে এবং হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলা চালিয়েছে। শেখ হাসিনার সরকার এসব অপশক্তিকে মাথা তুলতে দেবে না। কুমিল্লার ঘটনাটি ঘৃণ্যতম। এটা সাম্প্রদায়িক অপশক্তিরই কাজ।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর রামকৃষ্ণ মিশন পূজামণ্ডপ পরিদর্শন শেষে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, গুজবে কান দেবেন না। গুজব সৃষ্টি করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অপপ্রচার চলছে। এসব বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে।

তিনি আরও বলেন, দেশের উন্নয়নে যাদের গাত্রদাহ, সারাদেশের প্রতিটি পূজামণ্ডপে শান্তিপূর্ণ পূজা উদযাপনের কারণে যাদের গাত্রদাহ, তারা দেশকে পিছিয়ে দিতে চায় নানা অপকৌশলে। এর একটি হলো হিন্দু-মুসলমান বৈরিতা সৃষ্টি করা। তিনি নিজেদের মধ্যে ঐক্য সুদৃঢ় রাখতে আহ্বান জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশের প্রশাসনকে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির উস্কানিমূলক তৎপরতা ও ষড়যন্ত্রমূলক দুরভিসন্ধির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন। প্রশাসনের সবাই সতর্ক অবস্থানে থাকবে যাতে এই অপশক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে না পারে।

তিনি আরও বলেন, উগ্র সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী দেশের শান্তি বিনষ্ট করার পাঁয়তারা করছে। তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, প্রতিমা বিসর্জনের পরও এসব ঘটনার রেশ থাকতে পারে। আমরা সতর্ক পাহারায় থাকব।

এদিকে সন্ধ্যায় রাজধানীর কেআইবি প্রাঙ্গণে শারদীয় দুর্গাপূজার মহাষ্টমীর শুভেচ্ছা প্রদান অনুষ্ঠানে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে, কেউ ছাড় পাবে না। যারা হিন্দুদের মন্দিরে হামলা চালায় তারা দলীয় পরিচয়ের হলেও ছাড় দেওয়া হবে না।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী সাম্প্রদায়িক সম্প্র্রীতির এক অনন্য নজির স্থাপন করেছেন। সারাদেশে উৎসবমুখর পরিবেশে সার্বজনীন দুর্গাপূজা উৎসবে পরিণত হয়েছে। প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ হাজার পূজামণ্ডপে উৎসব পালিত হচ্ছে, তাই একটি কুচক্রী মহলের গাত্রদাহ হচ্ছে।

সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, কোনো দুর্বৃত্ত যাতে মন্দিরে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি বা হামলা করতে না পারে সেদিকে সতর্ক থাকতে হবে।