জাতীয় প্রেস ক্লাবে 'রাজনৈতিক অনুষ্ঠান' বন্ধ করে ক্লাব কর্তৃপক্ষ মতপ্রকাশের স্বাধীনতাবিরোধী সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে নব্বইয়ের ডাকসু ও সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্য। বৃহস্পতিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে নব্বইয়ের ডাকসু ভিপি আমানউল্লাহ আমান এ কথা বলেন।

আমানউল্লাহ আমান বলেন, জাতীয় প্রেস ক্লাবের ব্যবস্থাপনা কমিটির গত বুধবারের সিদ্ধান্তে দেশবাসীর সঙ্গে আমরাও গভীরভাবে ব্যথিত ও ক্ষুব্ধ। আমরা মনে করি, জাতীয় প্রেস ক্লাব অতীতে জাতির নানা সংকটে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে এবং রাজনৈতিক সভা-সমাবেশ করার অবারিত সুযোগ জাতীয় প্রেস ক্লাব কখনোই হরণ করেনি।

তিনি বলেন, ক্লাব ব্যবস্থাপনা কমিটি এ ধরনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে প্রেস ক্লাবের গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক ঐতিহ্যকে যেমন ভূলুণ্ঠিত করল; একইভাবে গণতন্ত্র হত্যাকারী বিনা ভোটের নিশি রাতের সরকারের রাজনীতি-গণতন্ত্র ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতাবিরোধী ঘৃণ্য তৎপরতাকেই সহযোগিতা করল। দেশের সব গণতান্ত্রিক শক্তির পক্ষ থেকে এ সিদ্ধান্ত অবিলম্বে প্রত্যাহার করার জন্য আমরা আহ্বান জানাচ্ছি।

গত ১০ অক্টোবর শহীদ জেহাদ দিবস উপলক্ষে জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে জেহাদ স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগ আলোচনা সভায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য দেওয়া নিয়ে প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি ফরিদা ইয়াসমীনের বিবৃতির নিন্দা জানান আমানউল্লাহ আমান। ফরিদা ইয়াসমীনের বিবৃতি প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে আমানউল্লাহ আমান বলেন, জাতীয় প্রেস ক্লাব হবে বহুমত ও বহুপথের মানুষের মিলনকেন্দ্র, মুক্তচিন্তা ও স্বাধীন মতপ্রকাশের নির্ভরযোগ্য অঙ্গন।

ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ফজুলল হক মিলনের সঞ্চালনায় নব্বইয়ের সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্যের শামসুজ্জামান দুদু, ড. আসাদুজ্জামান রিপন, হাবিবুর রহমান হাবিব, রুহুল কবির রিজভী, খায়রুল কবীর খোকন, জহিরউদ্দিন স্বপন, নাজিম উদ্দিন আলম, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল প্রমুখ নেতা উপস্থিত ছিলেন।