বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের (এমএল) সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া বলেছেন, খাদ্যদ্রব্যসহ নিত্যব্যবহার্য জিনিসপত্রের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধিতে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলগুলো জিনিসপত্রের দাম পর্যবেক্ষণ করে মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে রাখতে ব্যর্থ হচ্ছে।

শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সাম্যবাদী দল ঢাকা মহানগর আয়োজিত মানববন্ধনে দিলীপ বড়ূয়া এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, করোনা মহামারি মোকাবিলায় বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ। কিন্তু করোনাকালে লকডাউন ও বিধিনিষেধের কারণে নিম্নবিত্ত, মধ্যবিত্ত, দিনমজুর ও গরিব মানুষের একটি বড় অংশ আয়-রোজগার হারিয়েছে। অন্যদিকে চাল, ভোজ্যতেল ও গ্যাসসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম লাগামহীনভাবে বেড়েই চলেছে।

তিনি বলেন, করোনাকালে জনগণের একটি বৃহৎ অংশ দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন জাঁতাকলে পড়ে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। অন্যদিকে লুটেরা ধনিক শ্রেণির বল্কগ্দ্লাহীন মুনাফা শ্রেণি বৈষম্যকে তীব্রতর করেছে। এই অবস্থাকে পুঁজি করে সাম্প্র্রদায়িক অপশক্তি ও কায়েমি স্বার্থবাদী মহল ষড়যন্ত্র-চক্রান্তের মাধ্যমে দেশকে অস্থিতিশীল করে তুলবে, সরকার জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে। এর সুযোগ নিয়ে আঁধারের শক্তিগুলো বিভিন্ন অপকর্মে লিপ্ত হবে।

দিলীপ বড়ূয়া বলেন, কোনো মহল দেশকে যাতে অস্থিতিশীল করতে না পারে সে জন্য চাল, তেল ও গ্যাসসহ নিত্যব্যবহার্য জিনিসপত্রের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখা সরকারের জরুরি প্রয়োজন। সামাজিক নিরাপত্তা বলয়ও ব্যাপকতর করা প্রয়োজন।

সাম্যবাদী দলের ঢাকা মহানগর সম্পাদক বাবুল বিশ্বাসের সভাপতিত্বে ও মহানগর সদস্য সাইমুম হকের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন সুনীল শীল, রাসেল সরদার, হযরত মোল্ল্লা, জয়নাল, সাহেনা বেগম, সৈকত খান প্রমুখ।