বিএনপি ৭ নভেম্বর 'বিপ্লব ও সংহতি দিবস' পালনে দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, ৬ নভেম্বর বেলা ২টায় মহানগর নাট্যমঞ্চে আলোচনা সভা হবে। ৭ নভেম্বর দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও দোয়া অনুষ্ঠান হবে। এছাড়া কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সারাদেশে সব কার্যালয়ে দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। দিবসটি উপলক্ষে দলের পক্ষ থেকে পোস্টার প্রকাশ করা হয়েছে। জেলা, মহানগর, উপজেলা পর্যায়ে দিবস পালনে স্থানীয় কমিটিগুলো ব্যবস্থা নেবে।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন প্রসঙ্গে রিজভী বলেন, ভোট ডাকাত সরকারের লোকজন এখন এই নির্বাচন নিয়ে নিজেরাই কামড়াকামড়ি, মারামারি করে মরছে। তারা গ্রামীণ জনপদে সাধারণ মানুষের শান্তি বিনষ্ট করছে। ইউপি নির্বাচন ঘিরে এ পর্যন্ত ২২ জনের প্রাণহানি হয়েছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা ঢাকায় বসে মনোনয়ন বাণিজ্য করছেন। 

রিজভী বলেন, নির্বাচনে সহিংসতার দায় স্থানীয় প্রশাসনের ওপর চাপাচ্ছে মেরুদণ্ডহীন নির্বাচন কমিশন। অথচ তপশিল ঘোষণার পর প্রশাসন কমিশনের অধীনে চলে আসে। সহিংসতা ও অনিয়মের দায়ও পড়ে নির্বাচন কমিশনের ওপর।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন নবী খান সোহেল, কেন্দ্রীয় নেতা মীর সরফত আলী সপু, আবদুস সালাম আজাদ, মুনির হোসেন, বেলাল আহমেদ প্রমুখ।