জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, রাষ্ট্র মেরামতের প্রয়োজনে ছাত্ররাই রাজপথে নামবে। রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব যখন হুমকিতে পড়ে তখন অবশ্যই ছাত্ররা রাজপথে নামতে বাধ্য।

শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর জেএসডি আয়োজিত সড়কে মানুষ হত্যা ও নির্বাচনের নামে নৈরাজ্য বন্ধ এবং শিক্ষার্থীদের ন্যায়সংগত ১১ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলে তিনি এসব বলেন।

আ স ম আবদুর রব বলেন, ‌‘সড়কে নির্বিচারে ছাত্র হত্যা, গণমানুষের অধিকার কেড়ে নেওয়া সর্বোপরি আমাদের মতো গণতন্ত্রহীন দেশে ছাত্রদের রাজপথও গণমানুষের অধিকার আদায়ের শিক্ষায় শিক্ষিত করে তোলে। রাজপথ ছাত্রদের সমাজের প্রয়োজনে নিজেদের উৎসর্গ করার নৈতিক শিক্ষা দেয়। বাঙালির ইতিহাসে অন্যায়, অবিচার ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে ছাত্ররাই আন্দোলনের সূচনা করেছে।’

তিনি বলেন, ‘এ দেশে ভাষা আন্দোলন, স্বাধিকার আন্দোলন ও সশস্ত্র মুক্তিসংগ্রামে ঐতিহাসিক ও অগ্রণী ভূমিকা রেখেছে ছাত্র আন্দোলন। সুতরাং বৈষম্যহীন মানবিক ও নৈতিক রাষ্ট্র বিনির্মাণের সংগ্রামে ছাত্রদেরও অংশ নিতে হবে। গত কয়েক বছরের ছাত্র আন্দোলনের বৈশিষ্ট্য থেকে পরিলক্ষিত হচ্ছে যে, অদূর ভবিষ্যতে তাদের ঘোষিত 'রাষ্ট্র মেরামত' তথা ন্যায়বিচারের নিশ্চয়তাসহ শাসন ব্যবস্থায় বড় ধরনের পরিবর্তনে অনুঘটকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হবে ছাত্রসমাজ। ছাত্রদের ১১ দফা দাবি দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে।’

ঢাকা মহানগর উত্তর জেএসডির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আবুল মোবারকের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন জেএসডির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ছানোয়ার হোসেন তালুকদার, কার্যকরী সভাপতি সিরাজ মিয়া, সহসভাপতি তানিয়া রব, কার্যকরী সাধারণ সম্পাদক শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, সহসভাপতি কে এম জাবির, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সৈয়দ বেলায়েত হোসেন বেলাল, জাতীয় শ্রমিক জোট সভাপতি মোশারফ হোসেন, জেএসডি সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল্লাহ আল তারেক, এম এ ইউসুফ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সভাপতি তৌফিক উজ জামান পীরাচা প্রমুখ।