গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার প্রহলাদপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীকে কোনো প্রচার প্রচারণা চালাতে দেওয়া হবে না বলে প্রকাশ্যে ঘোষণা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নূরুল হক আকন্দ। 

বর্তমান চেয়ারম্যান ও আগামী ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নূরুল হক আকন্দের এ বক্তব্যের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে মঙ্গলবার ভাইরাল হয়।

প্রহলাদপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন উপজেলা বিএনপির সদস্য ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাঈদ আকন্দ।

প্রতিদ্বন্দ্বী এ প্রার্থীকে কোনো ভাবেই গণসংযোগে অংশ নিতে দেবেন না বলে সোমবার নির্বাচনী এক সভায় ঘোষণা দেন নৌকার প্রার্থী।

ভিডিওতে দেখা যায়, নূরুল হক আকন্দকে ঘিরে আছেন বেশ কিছু দলীয় কর্মী। হ্যান্ডমাইক হাতে তিনি উচ্চস্বরে বলছেন, বিএনপির প্রার্থী স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে গণসংযোগের পাঁয়তারা করছে। প্রহলদাপুরের ২৭টি গ্রামের কোথাও তাকে একটি নির্বাচনী কার্যকলাপও পরিচালনা করতে দেব না। স্বতন্ত্র প্রার্থীর একটি পোস্টারও লাগানো যাবে না।  কোথাও পোস্টার লাগালে আমাকে জানাবেন। আমি প্রার্থী, আমি জীবনকে বাজী রেখে যারা ষড়যন্ত্র করছে তাদের ভেঙে দিতে আপনাদের পাশে থেকে আমি সহযোগিতা করবো।

আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর ১ মিনিট ৩১ সেকেন্ডের এ বক্তব্য ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু সাঈদ আকন্দ বিষয়টি লিখিত ভাবে নির্বাচন কমিশন, জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারকে জানিয়েছেন। 

আবু সাঈদ আকন্দ সমকালকে বলেন, একটি গণতান্ত্রিক দেশে প্রতিদ্বন্দ্বী একজন প্রার্থীকে কি এভাবে হুমকি দিতে পারে?

অভিযুক্ত নৌকার প্রার্থী নূরুল হক আকন্দ বলেন, কথাটি আবেগে বলে ফেলেছি।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কাজী মোহাম্মদ ইস্তাফিজুল হক সমকালকে জানান, বিষয়টি নির্বাচন কমিশন জানতে পেরেছে। ভিডিওটির যাচাই বাছাই চলছে। সত্য প্রমাণ হলে বিধি অনুয়ায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।