ঢাকা শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪

সরকার দেশকে গৃহযুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে: গণতন্ত্র মঞ্চ

সরকার দেশকে গৃহযুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে: গণতন্ত্র মঞ্চ

গণতন্ত্র মঞ্চের মিছিল। ছবি: সমকাল

সমকাল প্রতিবেদক

প্রকাশ: ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩ | ১৭:১৩ | আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩ | ১৭:২০

‘একতরফা’ নির্বাচনে নামে সরকার দেশকে গৃহযুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছে গণতন্ত্র মঞ্চ। বুধবার দুপুরে পল্টন মোড়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে গণতন্ত্র মঞ্চের নেতা বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, সরকার যেভাবে দেশকে নিয়ে যাচ্ছে, দেশটাকে যেভাবে মগের মুল্লুক বানিয়ে দিয়েছে তাতে একটা গৃহযুদ্ধের দিকে নিয়ে যাওয়ার পায়তারা এরই মধ্যে শুরু হয়েছে। এই খেলাটা বন্ধ করেন।

সাইফুল হক বলেন, কীভাবে নির্বাচন হচ্ছে? এটা কি কোনো নির্বাচন? দেশের মানুষ কি এটাকে নির্বাচন মনে করেন? করে না। নির্বাচন নিয়ে সারাদেশে কোনো খবর নাই। মনোযোগটা কোন দিকে? আওয়ামী লীগ কোন নেতার জন্য কোন সিট বরাদ্দ করছে, কোন দলের জন্য কোন সিট বরাদ্দ করছে। রাজউকের (রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ) প্লট বরাদ্দের মতো আগামী ৫ বছরে সংসদীয় আসন কার নামে কোন দলকে, যারা তার লেজুড় কাকে কোনটা বরাদ্দ দেবে। এর নাম তারা দিয়েছেন নির্বাচন।

সাইফুল হক আরও বলেন, এই নির্বাচন বাংলাদেশে নির্বাচন কেন্দ্রিক যে সংকট…. একটা জবরদস্তিমূলক করে নির্বাচন করতে যেয়ে আপনারা (ক্ষমতাসীন সরকার) গ্রামকে ভাগ করে ফেলেছেন, ঘরে ঘরে আপনারা হামলা করছেন, আপনারা বাড়িতে বাড়িতে হামলা করছেন, আপনারা সব জনপদকে একটা সন্ত্রাসের ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে কোটি কোটি মানুষকে নির্ঘুম রাত যাপনে আপনারা বাধ্য করছেন। এর নাম নাকি গণতন্ত্র।

গণতন্ত্র হত্যাকারী হিসেবে চিহ্নিত আওয়ামী লীগ ৬ ডিসেম্বর গণতন্ত্র দিবস পালনের কঠোর সমালোচনা করেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক।

৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচির সমর্থনে বেলা সাড়ে ১১টায় গণতন্ত্র মঞ্চের নেতাকর্মীরা তোপখানা রোড, বিজয় নগর মোড়ে মিছিল করে পল্টনে মোড়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন।

‘আওয়ামী লীগের গেলে আগুন সন্ত্রাসীও ফেরেশতা হয়ে যায়’

গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেন, আগুন সন্ত্রাসী হয়েও ফেরেশতা হওয়া যায়। এটা প্রমাণ করে দিয়েছেন ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর। যতগুলো মামলা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিরুদ্ধে করা হয়েছে। সবগুলো মামলা ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমরের বিরুদ্ধেও করা হয়েছে। গাড়ি পোড়ানোর মামলায় যারা অভিযুক্ত হন, আওয়ামী লীগ তাদের কী বলে? আগুন সন্ত্রাসী।

তিনি আরও বলেন, কিন্তু আওয়ামী লীগে যোগ দিলে আগুন সন্ত্রাসী ভালো হয়ে যায়, আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে আগুন সন্ত্রাসী ফেরেশতা হয়ে যায়। এই ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর আগুন সন্ত্রাসী ছিলেন তিনি আওয়ামী লীগে যোগ দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফেরেশতা হয়ে গেছেন। এখন উনি আর জঙ্গি সন্ত্রাসী নন। তারপরে তার জামিন কীভাবে হয় তাও আপনারা দেখলেন। আর আওয়ামী লীগের টিকিট কীভাবে পাওয়া যায়। এই আওয়ামী লীগের ভাষায় তথাকথিত আগুন সন্ত্রাসী এরা যদি আওয়ামী লীগে যোগ দেয় সবাই ফেরেশতা হয়ে যাবে।

জোনায়েদ সাকি আরও বলেন, এই একতরফা নির্বাচনে জনগণ ভোট দেবে না। যে নির্বাচনে জানি কোন দল জিতবে। জিতলে কে প্রধানমন্ত্রী হবে আমরা সবাই জানি, শেখ হাসিনা হবে। তাহলে এই নির্বাচনে ভোট দেওয়ার কোনো দরকার আছে?

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের কোনো মানুষ ভোট দিতে যাবে, কোনো দেশপ্রেমিক এই নির্বাচনে ভোট দিতে যেতে পারে? বাংলাদেশের কোনো দেশপ্রেমিক মানুষ এরকম একটি ভুয়া নির্বাচন ভোট দিতে যেতে পারে না। এ কারণে জনগণকে আহ্বান জানাই এই ভোট বর্জন করুন। আপনার নীরব অবস্থান থেকেও যে প্রতিবাদ আপনি করতে পারেন সেটা করুন। নিজের নৈতিক কর্তব্য এ দেশের প্রতি কর্তব্য আপনারা পালন করবেন।

গণতন্ত্রমঞ্চ জনগণকে নিয়ে এই সরকার পতনে আন্দোলনে থাকবে বলে জানান তিনি।

নাগরিক ঐক্যের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ কায়সারের সভাপতিত্বে নাগরিক ঐক্যের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোফাখখারুল ইসলাম নবাবের সঞ্চালনায় সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ভাসানী অনুসারী পরিষদের শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, জেএসডির শহিদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, এসএম শামসুল আলম নিক্সন, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের দিদারুল ভুঁইয়া প্রমুখ।

আরও পড়ুন

×