প্রথমে মহানগর ছাত্রলীগ, এরপর জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগসহ এর সব ইউনিট এবং সর্বশেষ সোমবার মহানগর শ্রমিক লীগের কমিটি বিলুপ্ত করা হলো। সোমবার জাতীয় শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক কেএম আজম খসরু স্বাক্ষরিত চিঠিতে কমিটি বিলুপ্ত করার কথা জানানো হয়। এ নিয়ে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের ৩টি ইউনিটের ৪টি কমিটি বিলুপ্ত করে দেওয়া হলো।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভীর পক্ষে কাজ না করার অভিযোগে এসব কমিটি একের পর এক বিলুপ্ত করা হচ্ছে। তবে কমিটি বিলুপ্তির চিঠিতে ভোটে ভূমিকা বিষয়ে কোনো কথা উল্লেখ নেই।

নির্বাচনে প্রচার শুরুর পর গত ৯ জানুয়ারি সর্বপ্রথম মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করে দেওয়া হয়। চিঠিতে কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ বলে উল্লেখ করা হয়। এরপর সিটি নির্বাচনে ভোট গ্রহণের দিন রোববার বিলুপ্ত করে দেওয়া হয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ জেলা ও মহানগর কমিটিসহ সব থানা ও ওয়ার্ড কমিটি। এর একদিন পর সোমবার বিলুপ্ত করা হলো মহানগর শ্রমিক লীগের কমিটি।

এ নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাদের মধ্যে আতঙ্কের পাশাপাশি ক্ষোভও দেখা গেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে মহানগর আওয়ামী লীগের একজন সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, নির্বাচন চলাকালীন বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টে উঠে আসে নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পক্ষে কারা কাজ করছেন, আর কারা করছেন না। এ রিপোর্টের প্রেক্ষিতেই এসব ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।