‘শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অনশন ধর্মঘট করছে। তারা বেশি কিছু চায় না। তারা শেখ হাসিনার পদত্যাগ চায়নি, সরকারের পদত্যাগ চায়নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির পদত্যাগ চায়। ভিসি বলছেন, আমি পদত্যাগ করতে পারি, যদি সরকার বলে। সরকারের অনুমতি ছাড়া ভিসির পদত্যাগ করারও ক্ষমতা নাই। তিনি তো দাসের দাস।’

রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবে আসাদ পরিষদের উদ্যোগে শহীদ আসাদ স্মরণে আয়োজিত আলোচনা সভায় সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) উপাচার্যের কঠোর সমালোচনা করে নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না এসব কথা বলেন।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবির প্রতি সমর্থন জানিয়ে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা যদি ভিসির অসদাচরণ ও দুর্নীতির কারণে তাকে পথের মধ্যে, রোদের মধ্যে ২৪ ঘণ্টা দাঁড় করিয়ে রাখেন, তারপরও তিনি বলতে পারেন না আমি এ পদে থাকতে পারব না। এ তো দাসের দাস। এটা ওই ভিসির জন্য না হলেও আমাদের জন্য লজ্জাকর।’

দেশের শিক্ষাব্যবস্থার প্রসঙ্গ টেনে মান্না প্রশ্ন করেন, শিক্ষাকে কোথায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে? তিনি বলেন, পুরো দেশকে নৈতিকভাবে ধ্বংস করে দিয়েছে তারা। প্রশাসনের কোনো যোগ্যতা নাই, তাদের কোনো নৈতিকতা নাই, তাদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য নাই, তাদের কোনো কাজ করার ক্ষমতা নাই। তারা দেশকে সামনের দিকে নিয়ে যাবেন কেমন করে? এ অবস্থার পরিবর্তন ঘটাতে হবে।

আসাদ পরিষদের আহ্বায়ক অধ্যাপক মাহবুবউল্লাহর সভাপতিত্বে ও ডাকসুর সাবেক সাধারণ সম্পাদক খায়রুল কবির খোকনের পরিচালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, বিএনপি নেতা জহির উদ্দিন স্বপন, গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুর, সাবেক ছাত্রনেতা মনিরুজ্জামান প্রমুখ।