দেশের আলোচিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আদিয়ান মার্টের প্রধান কার্যালয় চুয়াডাঙ্গার মোমিনপুরে তালা লাগিয়ে দিয়েছেন গ্রাহকরা। তালা লাগানো হয়েছে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জুবায়ের সিদ্দিকীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং বাড়িতেও।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সিইও জুবায়ের সিদ্দিকীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়িতে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা অর্ধশত বিক্ষুব্ধ গ্রাহক। এর আগে প্রধান কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধনও করেন তারা।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন জানান, খবর পেয়ে সেখানে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রেখেছে পুলিশ।

প্রধান কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভকারীদের একজন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বোয়ালমারি গ্রামের মজিবুল হক জানান, এক বছর আগে তিনি আদিয়ান মার্টকে মোটরসাইকেল কেনার জন্য তিন লাখ ২৬ হাজার টাকা দিয়েছিলেন। এখন পর্যন্ত মোটরসাইকেল কিংবা টাকা কোনোটিই পাননি। তাদের কাছ থেকে কোনো সাড়াও মিলছে না।

বিভিন্ন ধরনের পণ্যের লোভনীয় বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে গ্রাহকদের কাছ থেকে অগ্রিম টাকা সংগ্রহ করে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আদিয়ান মার্ট। সদর উপজেলার আতিকুর রহমান উজ্জ্বলের কাছ থেকে ১৮ লাখ ৫২ হাজার ৪৮০ টাকা আত্মসাৎ করে প্রতিষ্ঠানটি। ২০২১ সালের ২৯ অক্টোবর শুক্রবার সন্ধ্যায় আদিয়ান মার্টের সিইও জুবায়ের সিদ্দিকী, তার বাবা আবু বকর সিদ্দিক, ভাই মাহমুদ সিদ্দিক ও ম্যানেজার মিনারুল ইসলামকে আসামি করে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় মামলা করেন উজ্জ্বল। ওই দিন রাতে খুলনা ও চুয়াডাঙ্গায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে র্যাব। এ ছাড়া প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে।

সম্প্রতি উচ্চ আদালত থেকে জামিন পান সিইও জুবায়ের সিদ্দিকী বাদে মামলার অন্য আসামিরা। উজ্জ্বল সমকালকে বলেন, আদালত থেকে জামিনে আসার পর আদিয়ান মার্টের সঙ্গে যুক্ত কর্মকর্তারা পাওনা টাকা ফেরত দিতে আবারও টালবাহানা শুরু করেছে। তাই তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়িতে তালা লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে।