বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) প্রথম কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই কংগ্রেসে বজলুর রশীদ ফিরোজকে দলের নতুন সাধারণ সম্পাদক করে ১৪ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। ফিরোজ দলের বিদায়ী কমিটির সদস্য ছিলেন।

শুক্রবার দুপুরে মহানগর নাট্যমঞ্চ প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করে কংগ্রেসের উদ্বোধন করা হয়। পরে অস্থায়ীভাবে নির্মিত শহীদ বেদিতে মানবমুক্তির সংগ্রামে জীবন দানকারীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।

এরপর সমাবেশে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। সারাদেশ থেকে আসা হাজার হাজার নেতাকর্মী কংগ্রেসের সমাবেশে যোগ দেন।

সমাবেশে বক্তব্য দেন বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, শ্রীলঙ্কার জনতা ভিমুক্তি পেরামুনার সাধারণ সম্পাদক তিলভিন সিলভা, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সাবেক সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক ও বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক এবং বাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রাজেকুজ্জামান রতন।

পরিচালনা করেন কংগ্রেস প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক বজলুর রশীদ ফিরোজ। কংগ্রেস উপলক্ষে বিভিন্ন দেশের ভাতৃপ্রতীম দলগুলোর নেতাদের পাঠানো শুভেচ্ছা বক্তব্য পাঠ করা হয়। এছাড়া করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় নেপালের কমিউনিস্ট পার্টি মাওয়িস্ট সেন্টারের কেন্দ্রীয় নেতা ওম প্রকাশ আসতে না পারায় দুঃখ প্রকাশ করা হয়। ভারতের সিপিআই (এম-এল) লিবারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুচেতা দে’কে ভিসা না দেওয়ায় তিনি কংগ্রেসে আসতে পারেননি জানিয়ে সমাবেশ থেকে ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়।

বাসদের নতুন কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যরা হচ্ছেন- সহকারী সাধারণ সম্পাদক রাজেকুজ্জামান রতন, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য নিখিল দাস, আব্দুল কুদ্দুস, জনার্দন দত্ত নান্টু এবং সদস্য রওশন আরা রুশো, আবদুর রাজ্জাক, অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম পল্টু, অধ্যক্ষ ওয়াজেদ পারভেজ, নবকুমার কর্মকার, শফিউর রহমান, জুলফিকার আলী, প্রকৌশলী শম্পা বসু ও ডা. মনীষা চক্রবর্ত্তী।