কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে পুলিশের এএসআইকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে হানিফ মিয়া নামের এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে একটি অডিও কথোপকথন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। পরে ওই ইউপি সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রোববার রাত ৯টার দিকে উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডে তার বাড়ি থেকে ইউপি সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি ৪নং ওয়ার্ডের নির্বাচিত ইউপি সদস্য।

চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শুভ রঞ্জন চাকমা সমকালকে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

পুলিশ জানায়, গত শুক্রবার রাত ৮টার দিকে শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য হানিফ মিয়া একই ইউনিয়নের নারচর গ্রামে অন্যের জমি থেকে তার দলবল নিয়ে ভেকু দিয়ে মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছিলেন। এসময় ভুক্তভোগী এক নারী ৯৯৯-এ কল করেন। খবর পেয়ে রাতে চৌদ্দগ্রাম থানার এএসআই শাহজাদার নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে এসে মাটি কাটা বন্ধ করে দেন। এ সময় মাটি কাটার বিষয়ে এএসআই শাহজাদা ওই মেম্বারকে মোবাইলে কল দিলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে প্রাণ নাশের হুমকি দেন। এ ঘটনায় উভয়ের কথোপকথনের ৩ মিনিট ২ সেকেন্ডের একটি অডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এতে ওই মেম্বারকে বলতে শোনা যায়, ‌'আমার অনুমতি ছাড়া আমার ওয়ার্ডে পুলিশ আসায় আমার সম্মান নষ্ট হয়েছে।' এ সময় তিনি ওই এএসআইকে হত্যার হুমকিসহ অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন। 

এ বিষয়ে এএসআই শাহজাদা বলেন, ‌'৯৯৯-এর কল আমরা অধিক গুরুত্ব দিয়ে বিষয়ে নিয়ে মেম্বারকে কল দেওয়ায় তিনি অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করা ছাড়াও আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দেন। কেন তার এলাকায় অনুমতি ছাড়া পুলিশ আসলো তাও বার বার জানতে চান। তাই এ হুমকির কারণে রোববার দুপুরে চৌদ্দগ্রাম থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়। পরে রাত ৯টার দিকে এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সোমবার তাকে আদালতে সোপর্দ করা হবে।'