গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক বলেছেন, নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসকে বেইজ্জতি করেছে সরকার। দ্রব্যমূল্যের ক্রমাগত ঊর্ধ্বগতি এবং বিরোধী রাজনীতিকদের ওপর হামলা ও হুমকির প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

শুক্রবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ সমাবেশের আয়োজন করে গণঅধিকার পরিষদের অঙ্গসংগঠন পেশাজীবী অধিকার পরিষদ।

এতে নুরুল হক আরও বলেন, ড. মুহাম্মদ ইউনূসের চিন্তাভাবনার সঙ্গে আপনার আমার পার্থক্য থাকতে পারে। তার অনেক কাজের পছন্দ-অপছন্দ থাকতে পারে। অথচ এই সরকার কীভাবে তাকে বেইজ্জতি করেছে। বাংলাদেশ নয়, সারা বিশ্ব দেখেছে এই সরকারের সংকীর্ণতা।

এছাড়া পদ্মা সেতু প্রসঙ্গে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও দ্য ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহ্ফুজ আনামকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার করা ‘অসহিষ্ণু বক্তব্য সমগ্র জাতি ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে’ বলে মন্তব্য করেন নুরুল হক ।

নুরুল হক দাবি করেন, সিলেটের বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী টিপাইমুখ বাঁধের বিরুদ্ধে লং মার্চ করায় এবং ভারতের আধিপত্যবাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী হওয়ার কারণে তাকে গুম করা হয়েছে। তিনি বলেন, আমাদেরকেও ভয়ভীতি দেখানো হয়। নতুন ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে দেখেছেন ভারত থেকে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পাঠিয়েছে। শুনতে পাচ্ছি, এনআরসিতে যারা নাগরিকত্ববঞ্চিত হয়েছেন, তার একটি অংশকে বাংলাদেশে ঢোকানোর পাঁয়তারা চলছে। এই সরকার এমন একটি জায়গায় আছে, তারা প্রতিবাদ করতে পারবে না। তারা দিল্লির কাছে ধরা।

নুরুল হক বলেন, গত ১১ বছরে এই সরকার প্রায় ১৫ লাখ কোটি টাকা পাচার করেছে। সরকার যা উন্নয়ন করছে, তার প্রায় চার গুণের মতো টাকা বিদেশে পাচার করা হয়েছে। সরকারকে হিসাব দিতে হবে, ১০ হাজার কোটি টাকার পদ্মা সেতুর ব্যয় কীভাবে ৪০ হাজার কোটি টাকায় যায়।