জুন মাসেই চন্দ্রালোকিত পূর্ণিমা রাতে পদ্মা সেতুতে দাঁড়িয়ে বাংলার মানুষ পূর্ণিমার চাঁদ দেখবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, দুর্নীতির অভিযোগ তুলে বিশ্বব্যাংক তাদের সহযোগিতার হাত ফিরিয়ে নিয়েছিল। তারা চলে গেলেও আমরা আমাদের টাকা দিয়ে পদ্মা সেতু করেছি। জুন মাসেই চন্দ্রালোকিত পূর্ণিমা রাতে পদ্মা সেতুতে দাঁড়িয়ে বাংলার মানুষ পূর্ণিমার চাঁদ দেখবে। আজই নেত্রীকে সামারি পাঠাব। তিনি যেদিন সময় দেবেন, সেদিনই আমরা পদ্মা সেতু উদ্বোধন করব।

শনিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৩ বছর আগে কোথায় ছিল বাংলাদেশ, আর আজকের বাংলাদেশ মিলিয়ে দেখুন। শেখ হাসিনা ফিরে এসেছেন বলে আজকে সারাবাংলার চেহারা পাল্টে গেছে, মহাকাশে স্যাটেলাইট পাঠিয়েছি, ভারত-মিয়ানমার থেকে আন্তর্জাতিক আদালত থেকে সমুদ্রসীমা পেয়েছি। সীমান্ত সমস্যার সমাধান হয়েছে। আজকে বাংলাদেশ পরমাণু ক্লাবের সদস্য। দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় প্রবৃদ্ধিতে প্রথম।

বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের অগ্রগতি নিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বাংলাদেশে প্রথম গাজীপুর থেকে সিটি গেটের কাছাকাছি বাস র‍্যাপিড ট্রানজিট ৭৫ ভাগ শেষ হয়েছে। ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের তিন ভাগের একভাগ সম্পন্ন হয়েছে। দক্ষিণ এশিয়ায় প্রথম নদীর নিচে টানেল নির্মাণ ৮০ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে। রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র উদ্বোধনের অপেক্ষায়। এছাড়া মাতারবাড়ি, পায়রা সমুদ্রবন্দর অনেকদূর এগিয়ে গেছে।

ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়ের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন প্রমুখ।