ঢাকা-বেনাপোল রেলপথে চলাচলের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ উপহার অত্যাধুনিক রেলকোচটি (ট্রেন) অবিলম্বে আবার চালু করার দাবি জানিয়েছে খুলনা বিভাগীয় সাংবাদিক ফোরাম (কেডিজেএফ) ঢাকা। বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে খুলনা বিভাগীয় সাংবাদিক ফোরাম (কেডিজেএফ) ঢাকার নির্বাহী কমিটির সভায় এই দাবি জানানো হয়।

সভায় ইন্দোনেশিয়ায় তৈরি বিলাসবহুল ওই ট্রেনটি সরিয়ে এর পরিবর্তে অপেক্ষাকৃত কম যাত্রী ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন ও আধুনিক সুবিধাবঞ্চিত 'বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস' ট্রেন অতি গুরুত্বপূর্ণ ঢাকা-বেনাপোল রেলপথে সংযোজনের কঠোর সমালোচনা করেন বক্তারা।

কেডিজেএফ-ঢাকার সভাপতি রাহুল রাহার সভাপতিত্বে সভাটি সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মুরসালিন নোমানী। সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক কাজী আব্দুল হান্নান, শ্যামল সরকার, মধুসূদন মন্ডল, আশীষ কুমার দে, হারুন জামিল, ফসিহ উদ্দীন মাহতাব, তৌহিদুল ইসলাম মিন্টু, সাব্বির নেওয়াজ, আইয়ুব আনসারী, আশরাফুল ইসলাম, আলমগীর হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান, সুনীতি কুমার বিশ্বাস, সাজু রহমান, শেখ মাহমুদ এ রিয়াত, অজিত কুমার মহলদার, এসএম মোস্তাফিজুর রহমান সুমন, আব্দুলল্গাহ মুয়াজ, নাদিয়া শারমিন, তানভীর আহমেদ প্রমুখ।

সাংবাদিকদের সংগঠনটির সভার সিদ্ধান্তে আরও বলা হয়, বেনাপোলের সঙ্গে রাজধানী ঢাকার উন্নত রেল যোগাযোগের বিষয়টি বিবেচনায় না নিয়ে ট্রেনটি উত্তরবঙ্গে সরিয়ে নিয়ে দেশের সর্ববৃহৎ আন্তর্জাতিক স্থলবন্দরের গুরুত্বকে অগ্রাহ্য করা হয়েছে। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের এ ধরনের অদূরদর্শী কর্মকাণ্ড বৃহত্তর যশোরবাসীসহ এই পথের অগণিত রেলযাত্রীর প্রতি বিমাতাসুলভ আচরণ করা হয়েছে।

সভায় বলা হয়, ভারতে যাতায়াতকারী বাংলাদেশের নাগরিকদের ৭৫ শতাংশই নিয়মিত বেনাপোল স্থলবন্দর ব্যবহার করেন। কোভিড-১৯ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় ভারত দীর্ঘ দুই বছর পর বাংলাদেশিদের জন্য পর্যটন ভিসা চালু করেছে। ফলে ভারতে যাতায়াতকারীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। এজন্য ঢাকা- বেনাপোল রেলপথে যাত্রী পরিবহন ক্ষমতা ও সেবার মান বৃদ্ধির প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে। তাই গুরুত্বপূর্ণ ও জনবহুল এই পথে আরো একাধিক বিলাসবহুল ট্রেন সার্ভিস চালুর দাবি জানান বক্তারা।

বিষয় : ঢাকা-বেনাপোল রেলপথ খুলনা বিভাগীয় সাংবাদিক ফোরাম বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস

মন্তব্য করুন