‘নতুন কিছু করতে চাইলে সুজন চাচাকে বলো, তিনি সেটা বাস্তবায়ন করে ছাড়বেন।’ মন্তব্যটা বাংলাদেশ দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজনকে নিয়ে করেছেন পেস বোলিং কোচ অ্যালান ডোনাল্ড। প্রোটিয়া কোচের মুখে ভাঙা শব্দে ‘সুজন চাচা’ শুনতে খারাপ লাগার কথা নয়। 

বয়সে খালেদ মাহমুদ সুজনের চেয়ে পাঁচ বছরের বড় ডোনাল্ড (৫৫)। তবু কেন সাবেক পেস অলরাউন্ডার ও অধিনয়ক সুজনকে চাচা ডাকছেন। কারণ তাকে চাচা ডাকতে বলা হয়েছে। বোর্ড নির্বাচক মিনহাজুল নান্নু, হাবিবুল বাশারসহ অনেকেই তাকে ওই নামেই ডাকেন। বাংলাদেশ ক্রিকেটাঙ্গনে চাচা নামে বেশ পরিচিত তিনি।  

‘আমাকে বলা হয়েছে তাকে চাচা ডাকতে।’ ঢাকা টেস্টের তৃতীয় দিন টিম ডিরেক্টরকে চাচা ডাকার ব্যাখ্যাও দিলেন কোচ। এরপর কাজের প্রশংসা করে বললেন, ‘তার কাজের ধরন আমার মনে ধরেছে। ক্রিকেটারদের কাছে তিনি ফাদার ফিগার। সকলেই তাকে সম্মান করে। নতুন আইডিয়া কাজে লাগাতে তার জুড়ি নেই। কেউ কোন পরিকল্পনার কথা বললে তিনি তা করেই ছাড়বেন।’ 

বাংলাদেশ দলের কোচ হওয়ার আগেও সুজনকে দেখেছেন তিনি। বাংলাদেশের প্রথম দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ছোট খাটো গড়নের চাচাকে দেখার অভিজ্ঞতা হয়েছিল তার। সেই স্মৃতি মনেও আছে প্রোটিয়া কোচের। সুজন নাকি তখন খুব চঞ্চল স্বভাবের ছিলেন।