সরকারের পক্ষ থেকে বিএনপির সাত নেতাকে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হলেও বিএনপি অনুষ্ঠানে যোগ দিচ্ছে না। দলিটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের একথা জানিয়েছেন।  

বুধবার সকাল ১১টায় সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সেতু বিভাগের উপসচিব দুলাল চন্দ্র সূত্রধর বিএনপি মহাসচিবসহ সাত নেতার আমন্ত্রণপত্র নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে পৌঁছে দেন। দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর কাছে তিনি এ আমন্ত্রণপত্র হস্তান্তর করেন। আমন্ত্রণ জানানো নেতারা হলেন- দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান ও ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমদ।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, যারা মানুষ হত্যা করে, যারা এই দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা ও তিনবারের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পদ্মায় ডুবিয়ে মারতে চায় এবং যারা দেশের সবচেয়ে প্রথিতযশা, দেশের জন্য সবচেয়ে বেশি সম্মান বয়ে আনা, সারা পৃথিবীতে নন্দিত নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসকে চুবিয়ে মারতে চায়, তাদের আমন্ত্রণে বিএনপির কোনো নেতা বা কর্মী কখনই যেতে পারেন না।

এর আগে রুহুল কবির রিজভী সাংবাদিকদের বলেন, আমরা এই কার্ড রিসিভ করিনি। আমি অফিসে বসে ছিলাম, জাস্ট তারা দিয়ে গেছেন। এটা নিয়ে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না।

কার্ড হস্তান্তরের সময়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, খায়রুল কবীর খোকন, আবদুস সালাম আজাদ, আবদুস সাত্তার পাটোয়ারী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।