ঢাকার সাভারের আশুলিয়ায় এক শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা ও নড়াইলে এক শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন দেশের ১৭ জন বিশিষ্ট নাগরিক। বিবৃতিতে তারা অত্যন্ত উদ্বেগের বলেছেন, বাংলাদেশের সমাজ ক্রমশ অসহিষ্ণু হয়ে উঠছে। তাই মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ পথ হারানোর আগেই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

গণমাধ্যমে বিবৃতি পাঠিয়ে এই আহ্বান জানিয়েছেন ১৭ বিশিষ্ট নাগরিক। নাসির উদ্দীন ইউসুফ বিবৃতিটি পাঠিয়েছেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, চলমান ঘটনায় প্রমাণিত হয়, বাংলাদেশ আজ সাম্প্রদায়িকতার ছোবলে ক্ষতবিক্ষত। দেশে মানবিক মর্যাদা ভূলুণ্ঠিত। সামাজিক মর্যাদা অদৃশ্য।

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, ঢাকার আশুলিয়ায় স্কুলছাত্রীকে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় উৎপল কুমার সরকার নামে এক শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা করেছে এক তরুণ। অন্যদিকে নড়াইলের মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে লাঞ্ছিত করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার স্বপ্ন বাস্তবায়নে সাম্প্রদায়িকসহ সব অপশক্তিকে কঠোর হস্তে দমন করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান বিশিষ্ট নাগরিকেরা। তারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চার মূলনীতির আলোকে শিক্ষা, প্রশাসনসহ রাষ্ট্রের সব কার্য সাধনে প্রতিষ্ঠানগুলো ঢেলে সাজানো এখন সময়ের দাবি।

বিবৃতিদাতারা হলেন, হাসান ইমাম, অনুপম সেন, সেলিনা হোসেন, রামেন্দু মজুমদার, সারোওয়ার আলী, ফেরদৌসী মজুমদার, আবেদ খান, আবদুস সেলিম, লায়লা হাসান, মফিদুল হক, শাহরিয়ার কবীর, মুনতাসির মামুন, হারুণ হাবীব, শফি আহমেদ, নাসির উদ্দীন ইউসুফ, শিমূল ইউসুফ ও সারা যাকের।