অপরাজনীতির কারণে জনপ্রত্যাখ্যাত সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডই বিএনপির এখন একমাত্র রাজনৈতিক হাতিয়ার বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিববহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।  

বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে গণমাধ্যমে প্রকাশিত বিএনপি মহাসচিবের উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মিথ্যা ও অপপ্রচারমূলক বিবৃতির নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি একথা বলেন।

আওয়ামী লীগ নাকি সন্ত্রাসনির্ভর রাজনৈতিক দল,- বিএনপি নেতাদের এমন হাস্যকর অভিযোগের জবাবে ওবায়দুল কাদের তার বিবৃতিতে বলেন, দেশের মানুষ ভালো করেই জানে, কোন দল সন্ত্রাসের পৃষ্ঠপোষক, কাদের রাজনৈতিক দর্শনে সন্ত্রাসনির্ভরতা রয়েছে।

তিনি বলেন, এদেশের রাজনীতিতে সন্ত্রাসের জন্মদাতা ও লালনকর্তা বিএনপি।

ক্ষমতায় থাকাকালে বিএনপি রাষ্ট্রযন্ত্রকে সন্ত্রাসের পৃষ্ঠপোষকতা প্রদান করেছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্বের প্রত্যক্ষ মদদ ও পৃষ্ঠপোষকতায় শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশে ২০০৪ সালের ২১ শে আগস্ট নৃশংস গ্রেনেড হামলা সংঘটিত হয়েছিল।এদেশের আগুন সন্ত্রাস আর জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে মারার ভয়াবহ অপসংস্কৃতিও তাদের আমলে হয়েছিল।

এসব সন্ত্রাসের বিপরীতে দাঁড়িয়ে গুণ আকাঙ্খাকে ধারণ করে জনকল্যাণের রাজনীতি করে আওয়ামী লীগ, এমন দাবি করে ওবায়দুল কাদের বিবৃতিতে আরও বলেন, অন্যদিকে গণভিত্তির মধ্য দিয়ে কিংবা জনগণের সংগঠিত প্রয়াস হিসেবে বিএনপির প্রতিষ্ঠা হয়নি, - এক নিষ্ঠুর স্বৈরশাসকের বন্দুকের নলের মুখে জনগণকে জিম্মি করে বিএনপির সৃষ্টি হয়েছিলো।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই বিএনপি একটি সন্ত্রাসনির্ভর ও ষড়যন্ত্রমূখী রাজনৈতিক দল হিসেবে জনগণের কাছে চিহ্নিত উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বিবৃতিতে বলেন, শুধু দেশেই নয়,কানডার আদালতও বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে চিহ্নিত করেছে।

বিএনপির বোঝা উচিত, কথামালার বৃষ্টিতে এদেশের জনগণের মন ভেজে না মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, জনগণ মুখোশের অন্তরালে থাকা তাদের প্রকৃত চেহারা চেনে ও জানে।

বিবৃতিতে ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, যে দলের রাজনৈতিক শক্তি ক্রমশ ক্ষয়িষ্ণু তাদের কাল্পনিক অভিযোগ দিন দিন বাড়বে - এটাই স্বাভাবিক।

বিএনপি নেতারা বানভাসী মানুষের সাথে লোক দেখানো ফটোসেশন করছে,তাদের এক চিমটি সাহায্য মানুষের ভোগান্তির সাথে নির্মম পরিহাস ছাড়া কিছু নয় বলেও মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, সাহায্যের নামে বিএনপির লোক দেখানো ত্রাণ থেকে মানুষ পরিত্রাণ চায়।

সেতুমন্ত্রী বলেন, সফল রাষ্ট্রনায়ক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার এবং আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা জনমানুষের পাশে রয়েছে। অতীতও ছিলো,ভবিষ্যতেও থাকবে। আর যারা রাজনীতিকে নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তনের হাতিয়ার মনে করে, যাদের জন্মই হয়েছিলো স্বৈরতন্ত্রকে দীর্ঘস্থায়ী করে ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করার জন্য- তারা জনগণের দুর্দশা নিয়েও অপরাজনীতি করে বলে মনে করেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ফেনীর সোনাগাজিতে বিএনপি নেতারা ত্রাণ বিতরণের নামে নাটক করেছে,তারা ফেনী থেকে ফেরত এসে সংবাদ সম্মেলন করছে।

বিএনপির ত্রাণ কার্যালয় এক ধরনের ত্রাণ বিলাস এমন অভিমত ব্যক্ত করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বিবৃতিতে বলেন, তারা সাহায্য প্রদানের চেয়ে প্রেস- ব্রিফিংয়ে অধিক মনোযোগী।

ওবায়দুল কাদের বলেন, যতদিন পর্যন্ত বিএনপি অপরাজনীতি ছেড়ে জনকল্যাণে মনোনিবেশ না করবে ততদিন পর্যন্ত তাদের সকল অকৌশল জনগণ ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করবে।