সপরিবারে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় যাওয়ার পথে পদ্মা সেতুতে টোল পরিশোধ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়। এসময় পদ্মা সেতুর মাওয়া টোল প্লাজায় ২৪ হাজার ২০০ টাকা টোল দেন তিনি।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী (অপা‌রেশন ও ব‌্যবস্থাপনা) মাহমুদুর রহমান সমকাল‌কে এ তথ‌্য নি‌শ্চিত ক‌রে‌ছেন।

এর আগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য পদ্মা সেতু হয়ে সড়কপথে সপরিবারে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার সকালে রাজধানীর গণভবন থেকে রওনা হয়ে সাড়ে তিন ঘণ্টার যাত্রা শেষে বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে টুঙ্গিপাড়া পৌঁছান তিনি।

এদিন গণভবন থেকে সকাল ৮টায় রওনা হয়ে ৮টা ৪০ মিনিটের দিকে পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তের টোল প্লাজায় পৌঁছায় প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহর। প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহর মাওয়া টোল প্লাজায় ৬ নম্বর লেন দিয়ে প্রবেশ করে। এসময় গাড়ি বহরের টোল পরিশোধ করেন প্রধানমন্ত্রীর ছেলে এবং তার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। সব মিলিয়ে ২৪ হাজার ২০০ টাকা টোল পরিশোধ করেন তিনি।

পদ্মা সেতুর মাওয়া টোল প্লাজায় টোল দিচ্ছেন সজীব ওয়াজেদ জয়। ছবি- সংগৃহীত

জানা যায়, বহরে থাকা মোট ২৯টি গাড়ির জন্য ২৪ হাজার ২০০ টাকা টোল পরিশোধ করেন জয়। এরপর প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহর সেতুতে ওঠে।

স্বপ্নের সেতু উদ্বোধন করার ১০ দিনের মাথায় সরকার প্রধানের সেতু অতিক্রম ঘিরে পদ্মার দুই পারের মানুষই বেশ উচ্ছ্বসিত ছিল। উদ্বোধনের পর পদ্মা সেতু দিয়ে টুঙ্গিপাড়ায় এটিই প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত প্রথম সফর।

এদিকে সেতু অতিক্রমকালে প্রধানমন্ত্রী সেতুর মাঝামাঝি স্থানে গাড়ি থেকে নামেন। এসময় ছেলে জয় ও মেয়ে পুতুলসহ প্রায় ৫ মিনিট পদ্মা সেতুতে অবস্থান শেষে আবার গাড়িতে উঠে সেতু অতিক্রম করেন প্রধানমন্ত্রী। সকাল ৯টা ২০ মিনিটে জাজিরায় পৌছান প্রধানমন্ত্রী। সেখানে পদ্মা সেতুর সার্ভিস এরিয়া-২ এ সপরিবারে সকালের নাস্তা করেন।

এরপর প্রধানমন্ত্রী জাজিরা প্রান্তে উদ্বোধনী চত্বরেও কিছু সময় অবস্থান করেন। সেখানে বঙ্গবন্ধুর  ম্যুরাল ও ইলিশের ভাস্কর্যসহ চত্বরটি ঘুরে দেখেন। এসময় পরিবারের অন্য সদস্যরাও সেখানে ছিলেন। পরে জাজিরা প্রান্তের ২ নম্বর সার্ভিস এরিয়ায় সকালের নাস্তা করেন। এরপর ১০টা ২০ মিনিটে টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশে রওনা হয় প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহর।

এদিন বিকেলে আবার পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় ফেরেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় তার বহরের একজন কর্মকর্তা ৩৭টি গাড়ির টোলের টাকা পরিশোধ করেন বলে জানিয়েছেন নির্বাহী প্রকৌশলী ওয়াসিম আলী।

সেতু বিভাগের একজন তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সমকালকে জানিয়েছেন, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের (সওজ) সেতুতে পারাপারে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রিসভার সদস্যদের টোল দিতে হয় না। সশস্ত্র বাহিনীর গাড়িও টোলমুক্ত। কিন্তু সেতু কর্তৃপক্ষের সেতুতে সকলের জন্য টোল প্রযোজ্য।

এর আগে গত ২৫ জুন নিজের গাড়ি বহরের জন্য ১৬ হাজার ৪০০ টাকা টোল দিয়ে পার হয়ে স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।