নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, গায়ের জোরে বেশ কিছু দিন ক্ষমতায় থাকা যায়, কিন্তু দীর্ঘদিন থাকা যায় না। এই সরকার যে চুরি, ডাকাতি, গুণ্ডামি করে ক্ষমতায় আছে এটা সারা দুনিয়া জানে।

আজ মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বরিশাল মেট্রোপলিটন প্রেসক্লাবের যুগ্ম-সম্পাদক সাংবাদিক মামুনূর রশীদ নোমানীর ওপর হামলাসহ সারা দেশে সাংবাদিকদের ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদে তৃণমূল নাগরিক আন্দোলন আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

মান্না বলেন, র‌্যাব একটা এলিট ফোর্স, সম্মানিত বাহিনী হওয়ার কথা। দেশের পুলিশ মানুষের ভালোবাসা পাওয়ার কথা। তাদের দিয়ে ব্যালট ডাকাতি করায়, তাদের দিয়ে জনগণের ওপর নির্যাতন করায়। এই জন্যে আমেরিকার মতো দেশসহ পৃথিবীর অনেক বড় বড় দেশ পুলিশ-র‌্যাবের বড় কর্মকর্তার ওপরে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে।

কতজন সাংবাদিককে গুলি করে হত্যা করেছেন প্রশ্ন করে মান্না বলেন, কতগুলো মানুষকে দিনের বেলা, রাতের অন্ধকারে তুলে নিয়ে গুম করেছেন তাদের কথা বলা যায় না। কোনো নির্বাচন হয়নি, মানুষ ভোট দেয়নি, তবুও ১২ বছর ধরে ক্ষমতায়।

সরকার এখন বাহানা বের করেছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, তারা বলে- ভোট দেব আসেন সবাই। বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী গিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে অনুরোধ করছে- বিএনপিকে একটু বোঝান তারা যেন নির্বাচনে আসে। মানে এবার একটু সরকার বেকায়দায় আছে। আমরাও সবাই মিলে বলেছি। ওরা যতদিন ক্ষমতায় থাকবে ততদিন কোনো গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হবে না। আমরা সে নির্বাচনে যাব না। সরকারের পদত্যাগের দাবিতে রাজপথে আসেন। সাংবাকিদের ওপরে নির্যাতন বন্ধ করতে রাজপথে আসেন। সাংবাদিকরা যাতে লিখতে পারে সেই অধিকারের দাবিতে সবাই রাজপথে আসেন। সরকারের বিরুদ্ধে একটা সর্বাত্মক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

তৃণমূল নাগরিক আন্দোলনের সভাপতি ও জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের সহ-সাধারণ সম্পাক মোহাম্মদ মফিজুর রহমান লিটনের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের একাংশের সভাপতি কাদের গণি চৌধুরী, কৃষক দলের সহ-সাধারণ সম্পাক এম জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।