বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, দেশ শ্রীলঙ্কা হয়ে গেছে। প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে তিনি বলেন, লোডশেডিংকে নাকি মিউজিয়ামে পাঠিয়ে দিয়েছেন। জনগণ নাকি আর লোডশেডিং দেখবে না। কিন্তু আজ কোথায় আপনার সেদিনের আস্ফালন? আজকে কেন লোডশেডিং হচ্ছে।

বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

২০১১ সালের ৬ জুলাই সংসদ ভবনের সামনে তৎকালীন বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিনসহ বিএনপিদলীয় সাংসদদের ওপর পুলিশি হামলার দিবসটির স্মরণে জাতীয়তাবাদী নবীন দলের উদ্যোগে এ সভা হয়।

ড. মোশাররফ বলেন, এখন যেভাবে লোডশেডিং হচ্ছে, তা অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলছে। এভাবে চলতে চলতে একদিন দেখবেন, দেশ শ্রীলঙ্কা হয়ে গেছে। এটা সরকারি লোকরাও এখন একটু একটু বলা শুরু করছে। তারা বলছে, শ্রীলঙ্কা হতেও পারে। কিন্তু আমি বলছি, দেশ শ্রীলঙ্কা হয়েই গেছে। কোথায় বাকি আছে। স্বাধীনতা নেই, অর্থনীতির অবস্থা নাজুক।

তিনি আরও বলেন, এ দেশের মানুষ অতি দ্রুত পরিবর্তন চায়। তারা আর এই সরকারকে দেখতে চায় না। কোনো স্বৈরাচারী সরকার কখনও নিজ থেকে সরে যায় না। জনগণ চায় পরিবর্তন। জনগণ চায় এই সরকার অতি দ্রুত তার পদ থেকে পদত্যাগ করুক বা আমরা তাদের সরিয়ে দেই। সেটা করতে হলে সবাইকে অবশ্যই রাস্তায় নামতে হবে।

নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ১২-১৩ বছরের লড়াইয়ে আওয়ামী লীগ রাজনৈতিকভাবে সম্পূর্ণ পরাজিত হয়েছে। আওয়ামী লীগ এত বড় দল, এত পুরোনো দল। অথচ তারা এখন একটা ঘৃণিত দল। আওয়ামী লীগকে মানুষ পছন্দ করে না। ভোট যদি হয় তারা বুঝতে পারত কী হতো। তাই তারা ভোটই বাতিল করে দিয়েছে।

সংগঠনের সভাপতি হুমায়ুন আহমেদ তালুকদারের সভাপতিত্বে সভায় বিএনপির সাবেক সাংসদ এবিএম আশরাফ উদ্দিন নিজান, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক ইসহাক সরকার প্রমুখ বক্তব্য দেন।