টাকা পাচারের অভিযোগে এবার পৃথক মামলা হয়েছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সাবেক মন্ত্রী ও ফরিদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেনের এপিএস এএইচএম ফোয়াদের নামে। তাঁর বিরুদ্ধে স্বতন্ত্রভাবে সাড়ে পাঁচ কোটি টাকার মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগ এনেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি।

বৃহস্পতিবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুমন রঞ্জন সরকার। এর আগে বুধবার দিবাগত রাতে কোতোয়ালি থানায় মামলাটি করেন সিআইডির এসআই বিচিত্রা রানী বিশ্বাস।

মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, এপিএস ফোয়াদের বাড়ি নগরকান্দা উপজেলার বিলনালিয়ায়। তিনি ২০১৫ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত তৎকালীন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের ছত্রছায়ায় থেকে ফরিদপুরের সাজ্জাদ হোসেন বরকত এবং ইমতিয়াজ হাসান রুবেলের সহায়তায় হেলমেট বাহিনী গঠন করেন। এই বাহিনী দিয়ে এলজিইডি, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর, গণপূর্ত বিভাগ, বিএডিসি, সড়ক বিভাগসহ বিভিন্ন সরকারি অফিসের টেন্ডার নিয়ন্ত্রণ করে বিপুল পরিমাণ সম্পত্তির মালিক হয়েছেন তিনি। বিভিন্ন চাকরিতে নিয়োগে মন্ত্রীর সুপারিশ করিয়ে দেওয়ার কথা বলেও হাতিয়েছেন কোটি কোটি টাকা। এর বাইরে তিনি পাঁচ কোটি ৪৪ লাখ ৯৫ হাজার ৫৮৬ কোটি টাকা পাচার করেছেন।
সাবেক মন্ত্রী মোশাররফের ক্ষমতার বলয়ের কেন্দ্রে থাকা দুই ভাই রুবেল ও বরকতের নামে দুই হাজার কোটি টাকা পাচারের অভিযোগে ২০২০ সালের ২৫ জুলাই রাজধানীর কাফরুল থানায় মামলা করে সিআইডি। এ মামলার অন্যতম আসামি ফোয়াদ। তিনি বর্তমানে কারাগারে আছেন।