দেশে ভয়ের রাজত্ব কায়েম করে সভা সমাবেশের ওপর পুলিশ ও সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে হামলা চালিয়ে, মামলা করে বর্তমান সরকারের ফ্যাসিবাদী দুঃশাসন দীর্ঘায়িত করতে চাইছে বলে মন্তব্য করেছেন বাম গণতান্ত্রিক জোট ও ৯ বাম সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। তারা বলেন, দুঃশাসনের অবসান এবং গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম জোরদার করতে হবে। 

আজ মঙ্গলবার বাম গণতান্ত্রিক জোট ও ৯ বাম সংগঠনের নেতৃবৃন্দের যৌথসভায় তারা এ কথা বলেন। বিকেল ৩টায় বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

সভায় যার যার অবস্থান থেকে জ্বালানি তেল-সারসহ দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে এবং জনজীবনের সংকট দূর করতে ফ্যাসিবাদী দুঃশাসনের অবসানের লক্ষ্যে যুগপৎ আন্দোলন গড়ে তোলায় ঐক্যমত পোষণ করা হয়। 

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে আগামী ১৭ আগস্ট ঢাকায় ও সারাদেশে বিক্ষোভ সফল করতে সচেতন দেশবাসীর প্রতি সভা থেকে আহ্বান জানানো হয়। এছাড়া এই দাবিতে আগামীতে বৃহত্তর আন্দোলনের প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়। সকল বাম প্রগতিশীল রাজনৈতিক দল, ব্যক্তি ও গোষ্ঠীকে ফ্যাসিবাদী দুঃশাসনের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ গণসংগ্রাম ও গণআন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বানও জানানো হয়। 

শাহবাগে ছাত্র মিছিলে পুলিশ ও সন্ত্রাসী বাহিনীর হামলার নিন্দা ও ছাত্র নেতৃবৃন্দের নামে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয় এবং হামলাকারী পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের বিচার দাবি করা হয়। 

জ্বালানি তেল, পরিবহন ভাড়া, ইউরিয়া সারসহ নিত্যপণ্যের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ করার আহ্বান জানানো হয় সভা থেকে।

লোডশেডিং বন্ধ করা, বিদ্যুৎ খাতসহ চুরি দুর্নীতির বিচার, বিদেশে পাচারকৃত টাকা ফেরত আনারও দাবি জানানো হয়। এছাড়া পাচারের সাথে জড়িতদের বিচারের দাবিতে সারাদেশে বিক্ষোভ করার আহ্বান জানানো হয়। 

সভায় সম্প্রতি বাস ডাকাতি, বাসসহ বিভিন্ন এলাকায় দলবদ্ধ নারী ধর্ষণের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে ঘটনার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়। 

বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক অধ্যাপক আব্দুস সাত্তারের সভাপতিত্বে অনুুষ্ঠিত সভায় ৯ বাম সংগঠনের সমন্বয়ক জাফর আহমেদ, বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্স, বজলুর রশিদ ফিরোজ, মোশরেফা মিশু, মাসুদ রানা, বিধান দাস, মিহির ঘোষ, মোশাররফ হোসেন নান্নু, রাজেকুজ্জামান রতন, শাহীন রহমান, শহিদুল ইসলাম সবুজ, রুবেল শিকদার, ৯ বাম সংগঠনের নেতা ফয়জুল হাকিম, বেলাল চৌধুরী, নাসিরউদ্দিন নাসু, মাসুদ খান, মহিউদ্দিন চৌধুরী লিটন, বিপ্লব ভট্টাচার্য প্রমুখ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।