ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম (চরমোনাই পীর) বলেছেন, জালেমদের কবল থেকে জনগণকে মুক্ত করতে সমাজের সব সৎ মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে। নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি চেয়ারম্যান, কাউন্সিলর ও মেম্বারদের সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে।

মঙ্গলবার পুরানা পল্টনস্থ আইএবি মিলনায়তনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের বিজয়ী চেয়ারম্যান, কাউন্সিলর ও মেম্বারদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

রেজাউল করীম  বলেন, হাতপাখার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করলে ইসলামী আন্দোলনের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে এবং আদর্শচ্যুত হলে ইসলামী আন্দোলনকে বিতর্কিত করবে।’

তিনি প্রতিনিধিদের জনগণের সেবা করার মানসিকতা নিয়ে কাজ করা এবং আলেম-ওলামাদের জনগণের সেবার জন্য তৃণমূলে নেতৃত্ব দেওয়ার আহ্বান জানান।

দলের মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদের সভাপতিত্বে এবং কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক কেএম আতিকুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন— দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রিন্সিপাল মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী, আল্লামা খালিদ সাইফুল্লাহ, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, সহকারি মহাসচিব মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য আল্লামা নুরুল হুদা ফয়েজী, আলহাজ্ব খন্দকার গোলাম মাওলা, অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন ও অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, যুগ্ম মহাসচিব মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম ও ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, সহকারি মহাসচিব মাওলানা ইমিতয়াজ আলম, অধ্যাপক বেলায়েত হোসেন, আহমদ আবদুল কাইয়ূম, বরকত উল্লাহ লতিফ, জিএম রুহুল আমীন, মাওলানা খলিলুর রহমান, মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী প্রমুখ।

নির্বাচিত ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন— চরমোনাই ইউপি চেয়ারম্যান মুফতি সৈয়দ জিয়াউল করীম, জাগুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মুফতি হেদায়েতুল্লাহ খান আজাদী, শত্রুজিৎপুর ইউপি চেয়ারম্যান মুফতি উসমান গণী মুছাপুরী, নিয়ামতি ইউপি চেয়ারম্যান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীর, ধুলাসার ইউপি চেয়ারম্যান হাফেজ আব্দুর রহিম, পাঁচগাছিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাতেন সরকার, ময়না ইউপি চেয়ারম্যান হাফেজ মাওলানা আব্দুল হক মৃধা প্রমুখ।