গণফোরাম নেতারা বলেছেন, ‘২০১৪ সালের বিনা ভোট এবং ২০১৮ সালের রাতের ভোটের সংসদ নির্বাচনেও ভারত সরকার হস্তক্ষেপ করেছে। এর মাধ্যমে আওয়ামী লীগ ক্ষমতা দখল করে, যা দেখে দেশবাসী হতবিহ্বল হয়ে যায়। বিশ্ববাসীর কাছেও বিগত দুটি নির্বাচন গ্রহণযোগ্যতা পায়নি। পুনরায় জনগণের ভোটাধিকার হরণের ষড়যন্ত্র চলছে।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে শুক্রবার এক বিবৃতিতে গণফোরাম সভাপতি মোস্তফা মোহসীন মন্টু ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী এসব কথা বলেন।

তাঁরা বলেন, ‘পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বে আঘাত করেছেন। ভারত আমাদের প্রতিবেশী বন্ধু রাষ্ট্র, কিন্তু প্রভু নয়। এ দেশের জনগণ কারও দাসত্ব কোনোদিন মেনে নেয়নি।’

বিবৃতিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর অব্যাহতি এবং দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে তাঁর বিচার দাবি করেন গণফোরাম নেতারা।