শরীফ নুরুল আম্বিয়াকে সভাপতি, ইন্দু নন্দন দত্তকে কার্যকরী সভাপতি এবং নাজমুল হক প্রধানকে সাধারণ সম্পাদক পদে পুনর্নির্বাচিত করে বাংলাদেশ জাসদের নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে।

গত শনিবার রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বাংলাদেশ জাসদের দিনব্যাপী জাতীয় কাউন্সিলে তারা নির্বাচিত হন। সকালে কাউন্সিলের উদ্বোধন এবং বিকেলে দ্বিতীয় অধিবেশনে রাজনৈতিক ও সাংগঠনিক আলোচনা শেষে নতুন এই কমিটি গঠন করা হয়।

১০৯ সদস্যবিশিষ্ট কেন্দ্রীয় কমিটিতে কয়েকটি পদ শূন্য রাখা হয়েছে। কমিটির অন্যরা হচ্ছেন, সহ সভাপতি: আবু মো. হাশেম, কলন্দর আলী, অধ্যক্ষ রেজাউল হক, আমিরুল ইসলাম রাঙা, শহিদুল ইসলাম মিরন, শামীম আহমেদ, অ্যাডভোকেট হেমায়েতুল্লাহ হিরো, অ্যাডভোকেট মিলন কান্তি সরকার ও নুরুল ইসলাম হিটলার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক:করিম সিকদার, মনজুর আহমেদ মনজু, আবুল কালাম আজাদ বাদল, অ্যাডভোকেট জাকির আহমদ ও অধ্যাপক এমরান আল আমিন, সাংগঠনিক সম্পাদক: হোসাইন আহমেদ তফছির, অ্যাডভোকেট আনিছুজ্জামান আনিচ, ভানু রঞ্জন চক্রবর্তী, গৌতম রায়, শাহজাহান আলী সাজু, শফিকুল ইসলাম শফিক, অধ্যাপক ইদ্রিস আলী ও স্বপন কুমার দাস, কোষাধ্যক্ষ: শহীদুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক: মো. মহিউদ্দিন, জনসংযোগ সম্পাদক: কামরুজ্জামান, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক: অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা ঠাণ্ডু, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক: এএফএম ইসমাইল চৌধুরী, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক: ইউনুসুর রহমান, নারী বিষয়ক সম্পাদক: তনিমা সিদ্দিকী, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক: আশফাকুর রহমান সবুজ, সমাজসেবা সম্পাদক: জাহাঙ্গীর হোসেন চৌধুরী, আইন বিষয়ক সম্পাদক: অ্যাডভোকেট জহিরুল আলম বাবর, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক: শাহীনুর রহমান বাদল, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক: আবুল হোসেন, কৃষি ও খাদ্য বিষয়ক সম্পাদক:সালেহীন চৌধুরী শুভ, সমবায় বিষয়ক সম্পাদক: সৈয়দ এস এ কাদের আফেন্দী, শ্রমিক ও কৃষি শ্রমিক বিষয়ক সম্পাদক: শেখ মো. ফিরোজ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক: খন্দকার সাইদুর রহিম বিটুল, পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক: শামস কিবরিয়া প্রধান, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক: আবুল কালাম আজাদ, জনস্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক: ডা. আহমেদ পারভেজ জাবিন, স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক: আবু জাফর মাহমুদ, সংখ্যালঘু ও আদিবাসী বিষয়ক সম্পাদক: জগদীশ রায় প্রামাণিক, গণমাধ্যম সম্পাদক: কাজী তোফায়েল আহমেদ, সহ সম্পাদক: গোলাম মোস্তফা, জিএম রুস্তম খান, প্রকৌশলী রফিক উদ্দিন, প্রকৌশলী আব্দুল কুদ্দুস, ডা. আবু মো. রামীম, ফারুক হোসেন চঞ্চল, ইসমাইল হোসেন বাদল ও জি এম তাপস এবং সদস্য: ডা. মুশতাক হোসেন, আব্দুল কাদের হাওলাদার, আবু বকর সিদ্দিকী, আখতারুল আলম, অ্যাডভোকেট রশিদ আহমেদ, আনোয়ারুল ইসলাম বাবু, আহমেদ ফজলুর রহমান মুরাদ, এটিএম মহব্বত আলী, বাদল খান, নাসিরুল হক নওয়াব, মেজবাহ উদ্দিন খান বাচ্চু, বদিউল ইসলাম টিপু, সর্দার কাজেম আলী, রফিকুল হক খোকন, বীণা শিকদার, অধ্যক্ষ হারুনুর রশিদ, অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম মুকুল, অ্যাডভোকেট শহীদুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট নাজমুল কাবী সিন্টু, রাজিয়া সুলতানা, জিন্নাতুল নুর, অ্যাডভোকেট বদিউল আলম তপাদার, খোরশেদ আলম রাব্বানী, এসএম রহিম উল্লাহ, মাহবুব মোর্শেদ সেতু, মাহবুবুল হাকিম অপু, চন্দ্র শেখর হাওলাদার, অ্যাডভোকেট তোফাজ্জল হোসেন, আব্দুস সালাম খোকন, তুহিন চৌধুরী, শামসুল ইসলাম, আকরাম হোসেন, শফিকুল ইসলাম লিটন, অ্যাডভোকেট গোলাম মর্তূজা, অ্যাডভোকেট শরীফ আরিফ নেওয়াজ তুষার, প্রকৌশলী হাসান ইমাম ফিরোজ, মাহবুব আলম জাকির, রায়হানুর রহমান, নাজাত কবির, রফিকুল ইসলাম রুবেল, সাইদুর রহমান, জুয়েল ওহাব, শেখ হীরা ও নুরুল আমিন মিয়া নান্নু।

এর আগে জাতীয় কাউন্সিলের প্রথম অধিবেশনে সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশ জাসদের সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া সকল প্রগতিশীল ও গণতান্ত্রিক শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়ে বলেন, অতীতের অভিজ্ঞতা নিয়ে গণতন্ত্রের লক্ষ্যে বৃহত্তর ও কার্যকর ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। গড়ে তুলতে হবে সেই সংগ্রাম যে সংগ্রামে মানুষ আর বঞ্চিত হবে না।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকার ১৪ দল গঠনের ভিত্তি ২৩ দফা থেকে অনেক দূরে সরে গেছে। সরকার গঠনের শুরুতে কিছু গুরুত্বপূর্ণ ও ভাল পদক্ষেপ নিলেও বর্তমানে তারা সাম্প্রদায়িক শক্তি ও রাজনৈতিক দূর্বৃত্তদের সঙ্গে আপোষ এবং লুন্ঠন ও লূটপাটকারীদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিচ্ছে। এর মধ্য দিয়ে তারা জনগনের সামনে ১৪ দলের ভাবমূর্তিকে প্রশ্নবোধক চিহ্নের সামনে দাঁড় করিয়েছে। বর্তমানে এই সরকার জবাবদিহিতার জায়গায়ও নেই। ১৪ দলকেও তল্পিবাহক হিসেবে ব্যবহার করছে তারা।

শরীফ নুরুল আম্বিয়া বলেন, বাংলাদেশ জাসদ কারো তল্পিবাহক হয়ে রাজনীতি করতে পারে না। তাই আমরা ১৪ দল থেকে বেরিয়ে এসেছি। জনগণের মুক্তির জন্য জাসদের জন্ম হয়েছিল। সমতা, গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে আমরা সেই লক্ষ্য অর্জন করব। যারা নিজের ভাগ্য বদলের জন্য রাজনীতি করে তারা উপেক্ষিত হবে।

দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক করিম সিকদার ও মনজুর আহমেদ মনজুর পরিচালনায় প্রথম অধিবেশনে আরও বক্তব্য রাখেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি'র সভাপতি আসম আব্দুর রব, গণফোরামের একাংশের সভাপতি মোস্তফা মোহসীন মন্টু, ঐক্য ন্যাপের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট এসএমএ সবুর, বাসদের সাধারণ সম্পাদক বজলুর রশিদ ফিরোজ, জাতীয় শ্রমিক জোটের সভাপতি আব্দুল কাদের হাওলাদার প্রমুখ।