এক দফা সম্মেলন হয়ে যাওয়ার পর আবারও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের (ডিএসসিসি) দুইটি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সীমানা জটিলতার কথা বলে নতুন করে সম্মেলনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে ৬১ ও ৬৪ নম্বর ওয়ার্ডে। এ নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে রয়েছেন স্থানীয় নেতাকর্মীরা।

সংশ্নিষ্টরা জানান, গত ২৬ সেপ্টেম্বর মহানগর দক্ষিণের কদমতলী থানা এবং এই থানাধীন ৫টি ওয়ার্ডের সঙ্গে ৬১ নম্বর ওয়ার্ডের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ ছাড়া ৩ সেপ্টেম্বর মহানগর দক্ষিণের ডেমরা থানা ও এই থানাধীন ৫টি ওয়ার্ডের সঙ্গে ৬৪ নম্বর ওয়ার্ডের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এর পরও ৬১ ও ৬৪ নম্বর ওয়ার্ডকে সংযুক্ত করে আগামী ১৩ অক্টোবর যাত্রাবাড়ী থানা ও এই থানাধীন এই দুটি ওয়ার্ডসহ ৮টি ওয়ার্ডের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। এসব সম্মেলন সফল করতে গতকাল বৃহস্পতিবার বর্ধিত সভাও করেছেন মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা।

একই ওয়ার্ডের সম্মেলন দুই দফায় আয়োজনকে সাংগঠনিক নিয়মের লঙ্ঘন বলে মনে করছেন ওয়ার্ড দুটির নেতাকর্মীরা। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তীব্র সমালোচনা হচ্ছে।

সম্মেলন আয়োজনের দায়িত্বপ্রাপ্ত ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শরীফ সাংবাদিকদের বলেন, ডিএসসিসির ৬৪ নম্বর ওয়ার্ড একই সঙ্গে ডেমরা ও যাত্রাবাডী এবং ৬১ নম্বর ওয়ার্ড কদমতলী ও যাত্রাবাড়ী থানার সীমানায় পড়েছে। এ কারণে ওয়ার্ড দুটিকে যাত্রাবাড়ীর অন্তর্ভুক্ত করে আবারও সম্মেলন আয়োজনের জন্য নেতাকর্মীরা নগর আওয়ামী লীগ নেতাদের কাছে লিখিত আবেদন জানিয়েছেন।