জাতীয় পার্টির (জাপা) টালমাটাল অবস্থার মধ্যে থাইল্যান্ডে দীর্ঘ চিকিৎসা শেষে আজ রোববার দেশে ফিরছেন বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। তাঁকে স্বাগত জানাতে বিমানবন্দরে যাবেন না জাপা চেয়ারম্যান জি এম কাদের ও তাঁর অনুসারীরা।

জাপার প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন ঢাকায় নেমে রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীর নাম ঘোষণা করবেন বলে তাঁর অনুসারীরা জানিয়েছেন। যদিও ইতোমধ্যে মেয়র পদে মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফাকে প্রার্থী করেছে জাপা। পাল্টা প্রার্থী ঘোষণায় জাপার সংকট আরও বাড়বে।

সূত্র জানিয়েছে, বিলুপ্ত রংপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র আবদুর রউফ মানিককে প্রার্থী করবেন রওশন। ২০১২ সালের নির্বাচনে মসিউর রহমান রাঙ্গাকে মেয়র পদে সমর্থন করে জাপা। তিনি ভোট থেকে সরে গেলেও মোস্তফা ও মানিক স্বতন্ত্র প্রার্থী হন। আওয়ামী লীগ সমর্থিত সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টুর কাছে হেরে যান। পরের নির্বাচনে ঝন্টুকে হারিয়ে মেয়র হন লাঙলের প্রার্থী মোস্তফা।

রওশনপন্থির মামলায় আদালতের নিষেধাজ্ঞায় গত ১ নভেম্বর থেকে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করতে পারছেন না জি এম কাদের। দলের মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নুর স্বাক্ষরে মোস্তফাকে প্রার্থী করা হয়েছে। মনোনয়ন না পেয়ে বিদেশ থাকা মানিক রওশনের প্রার্থী হতে দেশে ফিরেছেন। তবে গত সেপ্টেম্বরে তিনি দল থেকে বহিস্কার হন মেয়র প্রার্থী হতে চেয়ে।

মুজিবুল হক চুন্নু সমকালকে বলেন, স্থানীয় সরকার নির্বাচন আইন অনুযায়ী দলের চেয়ারম্যান বা মহাসচিবের স্বাক্ষরে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়া যায়। মহাসচিবের স্বাক্ষরে প্রার্থী হয়েছেন মোস্তফা। এ নিয়ে কোনো সংশয় নেই। রওশন এরশাদের প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়ার ক্ষমতা নেই।

গত বছরের নভেম্বরে গুরুতর অসুস্থ রওশনকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে থাইল্যান্ডে নেওয়া হয়েছিল। গত ২৭ জুন দেশে আসেন সপ্তাহখানেকের জন্য। তাঁকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানিয়েছিলেন জি এম কাদের। কিন্তু দেশে ফিরে রওশন জাপা থেকে বহিস্কৃত নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা করায় দেবর-ভাবির সম্পর্কের অবনতি ঘটে।

বিএনপি-জামায়াতের সুরে সরকারের সমালোচনা করছেন- এমন কারণ দেখিয়ে জি এম কাদেরকে নেতৃত্ব থেকে সরাতে গত ৩১ আগস্ট চিঠি দিয়ে দলের কাউন্সিল ডাকেন রওশন। এতে তাঁদের দ্বন্দ্ব চূড়ান্ত রূপ নেয়। পাল্টা হিসেবে রওশনকে বিরোধীদলীয় নেতার পদ থেকে সরাতে জাপার ২৬ এমপির ২৪ জনের সমর্থন নিয়ে স্পিকারকে চিঠি দেন জি এম কাদের।

জেলায় জেলায় পাল্টা কমিটি করছে রওশনপন্থিরা। অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনেরও পাল্টা কমিটি করা হচ্ছে। রওশনের প্রত্যাবর্তনে জি এম কাদেরপন্থিদের চাপ আরও বাড়তে পারে। রওশন ঘোষিত কাউন্সিল প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব গোলাম মসিহ জানিয়েছেন, বিরোধীদলীয় নেতাকে স্বাগত জানাতে জাপার সর্বস্তরের নেতাকর্মী বিমানবন্দরে যাবেন। রওশনকে সংবর্ধনা দেওয়া হবে।