সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার জাফলংয়ে ব্যাটারির সঙ্গে খেলনা সদৃশ বস্তুর সংযোগ দিতে গিয়ে বিস্ফোরণে জুয়েল মিয়া নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শনিবার উপজেলার পূর্ব জাফলং ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, জুয়েলের বাবা ময়না মিয়া ও মা জোসনা বেগম দীর্ঘদিন জাফলংয়ের একটি কলোনিতে ভাড়া বাসায় থাকেন। ভারত থেকে এলসির মাধ্যমে দেশে আনা পাথর ভাঙার কাজ করেন তাঁরা। ঘটনার দিন শিশুটি সেই পাথর থেকে কুড়িয়ে পাওয়া তারযুক্ত খেলনা সদৃশ একটি বস্তু বাড়িতে নিয়ে খেলা করছিল। ওই তারে মোবাইল ফোনের একটি ব্যাটারি সংযোগ দেওয়ার চেষ্টা করে জুয়েল। এ সময় হঠাৎই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে জুয়েলের মুখে গভীর ক্ষত সৃষ্টি হয়। রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গেলে মৃত ঘোষণা করা হয়।

পুলিশের ধারণা, এলসি করে আনা পাথরের সঙ্গে কোনো বিস্ফোরক চলে এসেছিল। সেটিই বিস্ফোরিত হয়ে এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয়রা জানান, এর আগেও চার-পাঁচ বছর আগে তামাবিলে এলসি পাথর লোড-আনলোড করার সময় এমন এক বস্তুর বিস্ফোরণে এক শ্রমিক গুরুতর আহত হয়েছিলেন।

ওসি কে এম নজরুল ইসলাম জানান, পাথর শ্রমিক ও ব্যবসায়ীরা বলছেন, ভারত থেকে আনা পাথরের সঙ্গে হঠাৎই এমন বিস্ফোরক জাতীয় বস্তু চলে আসে। যেগুলো ওই দেশে পাথর ভাঙার কাজে ব্যবহৃত হয়। ধারণা করা হচ্ছে, এমন কিছুর বিস্ফোরণেই শিশুটির মৃত্যু হয়েছে।