চট্টগ্রামের ‘ফুসফুস’খ্যাত সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণের বিরোধিতায় চলমান নানা কর্মসূচিতে এবার আত্মপ্রকাশ করল নতুন প্ল্যাটফর্ম ‘সিআরবি রক্ষা মঞ্চ’।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সিআরবির শহীদ আবদুর রব কলোনিতে এক সভায় এই প্ল্যাটফর্ম গঠন করা হয়। 

মুক্তিযুদ্ধ গবেষক ডাঃ মাহফুজুর রহমানকে সভাপতি করে ১০১ সদস্যবিশিষ্ট  একটি কমিটি গঠন করেছে এই প্ল্যাটফর্মের সদস্যরা।

‘সিআরবি রক্ষা মঞ্চের’ সভায় বক্তারা বলেন, সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ প্রসঙ্গে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের জিএম জাহাঙ্গীর হোসেনের ‘ঔদ্ধ্যত্বপূর্ণ’ বক্তব্য মেনে নেওয়া যায় না।

তারা বলেন, জাহাঙ্গীর হোসেন যে ভাষায় চট্টগ্রামবাসীকে হুমকি দিয়েছে তাতে তিনি জনমনে ক্ষোভের আগুন আরও উসকে দিয়েছেন।আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই,সিআরবি এলাকায় কোন হাসপাতাল ও স্থাপনা চট্টগ্রামবাসী করতে দেবে না। যারা  এ প্রবল জনমতের বিরুদ্ধে সিআরবি ধ্বংসের পক্ষে দাঁড়াবেন,নতুবা তারা জনগণের শত্রু হিসেবে চিহ্নিত হবেন।

সিআরবি'র প্রাণ-প্রকৃতি রক্ষায় মোমবাতি প্রজ্বলন

সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ প্রকল্প বাতিলের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে লিখিত আবেদন করেছেন চট্টগ্রামের নাগরিক ও পেশাজীবী ব্যক্তিত্বরা। চলমান লকডাউনে ভার্চুয়ালি প্রতিবাদ অব্যাহত রেখেছেন বন্দরনগরীর বাসিন্দারা।

শুক্রবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক প্রশাসক ও নাগরিক উদ্যোগের প্রধান উপদেষ্টা খোরশেদ আলম সুজনের ডাকে সাড়া দিয়ে নিজেদের বাসাবাড়িতে মোমবাতি প্রজ্বলন করে সিআরবি রক্ষার দাবিতে একাত্মতা জানান চট্টগ্রামবাসীর একাংশ।

এই কর্মসূচির নাম দেওয়া হয়েছে ‘ঘরে ঘরে আলোর মিছিল'।

খোরশেদ আলম সুজন সমকালকে বলেন, 'উন্নয়নসহ নানা উছিলায় চট্টগ্রামের ভূ-প্রাকৃতিক পরিবেশ ধ্বংস করে দেওয়া হচ্ছে। সিআরবির মতো সুরক্ষিত হেরিটেজও রক্ষা পাচ্ছে না। তাই প্রতিবাদ জানাতে ঘরে ঘরে মোমবাতি জ্বালিয়ে আমরা আলো মিছিল কর্মসূচি পালন করেছি। সিআরবি থেকে হাসপাতাল প্রকল্প সরিয়ে না নেওয়া পর্যন্ত প্রতিবাদ কর্মসূচি চলতেই থাকবে।'

শনিবার বেলা ১১টায় অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে সিআরবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবেন চট্টগ্রামের বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিক নাসিরুদ্দিন চৌধুরী। শারিরীক নানা জটিলতার মধ্যেও সিআরবির জন্য তিনি এই কর্মসূচিতে একাত্মতা ঘোষণা করেছেন।