বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৫ শতাংশ হারে আয়কর আদায় না করতে সরকারকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি শশাঙ্ক শেখর সরকার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার রুলসহ এই আদেশ দেন।

রুলে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৫ শতাংশ হারে আয়কর আদায় কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে রিটে উল্লেখিত বিবাদীদের এই রুলের জবাব দিতে বলা হবে। ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের পক্ষে করা এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে এই আদেশ দেওয়া হয়। গত ১৬ সেপ্টেম্বর এ রিট দায়ের করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। রিটে আইন সচিব, অর্থ সচিব, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যানসহ পাঁচজনকে বিবাদী করা হয়।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ড. চৌধুরী ইশরাক সিদ্দিক। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল তাহমিনা পলি।
রিট আবেদনে অর্থ আইন ২০২১-এর তফসিল 'খ' এর সিরিয়াল ৭-কে চ্যালেঞ্জ করা হয়। ওই আইনের মাধ্যমে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর ১৫ শতাংশ হারে কর আরোপ করা হয়েছে। এর আগে গত তত্ত্বাবধায়ক সরকার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর কর আরোপ করলে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো রিট আবেদন করেছিল। পরে এ বিষয়ে করা পৃথক রিটের শুনানি নিয়ে ২০১৬ সালের ৫ সেপ্টেম্বর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর কর ধার্যের বিষয়টি অবৈধ ঘোষণা করেন হাইকোর্ট। এরপর হাইকোর্টের ওই আদেশের বিরুদ্ধে সরকারের পক্ষ থেকে আপিল করা হয়। আপিলের পরিপ্রেক্ষিতে আপিল বিভাগ চলতি বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি এক আদেশের মাধ্যমে সরকারকে আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর কর আরোপ না করার আদেশ দেন।

এরই মধ্যে ফের অর্থ আইন ২০২১-এর তফসিল 'খ' এর সিরিয়াল ৭-কে চ্যালেঞ্জ করে ১৬ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টে এ রিটটি দায়ের করা হয়।