রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ছাত্রদলের নেতাদের ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে। সোমবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ে বুদ্ধিজীবী চত্বরে এ ঘটনা ঘটে বলে ছাত্রদলের অভিযোগ। হামলায় ছাত্রদলের দুইজন আহত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। তবে ছাত্রলীগ বলছে, তাদের প্রতিহত করেছে ছাত্রলীগ।

আহতরা হলেন, শাখা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক এমএ তাহের রহমান ও আহ্বায়ক কমিটির সদস্য জাকির রেদওয়ান।

ছাত্রদল নেতারা অভিযোগ করেন, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হত্যার হুমকি দিয়েছেন। এই হুমকির প্রতিবাদে তারা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেন। পরে ছাত্রদল নেতা তাহের ও জাকির বুদ্ধিজীবী স্মৃতিফলক চত্বরে অবস্থানকালে তাদের ওপর ছাত্রলীগের নেতারা হামলা চালান।

এর আগে ছাত্রলীগ নেতারা অভিযোগ করেন, ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) বক্তব্য দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটূক্তি করেছেন। এর প্রতিবাদে ছাত্রলীগও রাবিতে বিক্ষোভ করে। সেখানে ছাত্রলীগ নেতারা ছাত্রদল নেতাকর্মীদের ক্যাম্পাসে পেলে গণধোলাই দেওয়ার ঘোষণা দেন।

হামলার বিষয়ে রাবি শাখা ছাত্রদলের আহ্বায়ক সুলতান আহমেদ রাহী বলেন, দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে শেখ হাসিনার করা কটূক্তির প্রতিবাদে দুপুরে আমাদের বিক্ষোভ মিছিল ছিল। বিক্ষোভ মিছিল শেষে আমাদের দুই ছোট ভাই ক্যাম্পাসে যায় শিট নিয়ে আসতে। এসময় বঙ্গবন্ধু হল ছাত্রলীগের সভাপতি কাবিরুজ্জামান রুহুল, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হল ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি শাকিল ও হবিবুর রহমান ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহারাজের নেতৃত্বে কয়েকজন ছাত্রলীগ ক্যাডার তাদের ওপর হামলা চালান। এতে দুজনই গুরুতর আহত হন। তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৮নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। তারা মাথায় মারাত্মক আঘাত পেয়েছে। আমরা ছাত্রলীগের এই সন্ত্রাসীদের শাস্তি দাবি করছি।

তবে হামলার বিষয়টি অস্বীকার করে সোহরাওয়ার্দী হল ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি শাকিল ও শহীদ হবিবুর রহমান হল ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহারাজ বলেন, ছাত্রদল নেতাকর্মীরা ক্যাম্পাসের পরিবেশ অস্থিতিশীল করার পলিকল্পনা করছিলেন এমন আশঙ্কা থেকে তাদের ক্যাম্পাস থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে। হামলার ঘটনা ঘটেনি।

শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তি করেছেন। আমরা এর প্রতিবাদ জানিয়েছি। ছাত্রদল উল্টো ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করে ক্যাম্পাসকে উত্তপ্ত করতে চেষ্টা করে। তাই আমাদের নেতাকর্মীরা তাদের শক্তভাবে প্রতিহত করেছে। প্রতিহতের সময় গায়ে হাত তুলেছে কি-না জানি না। হাত তুলতেও পারে।