চট্টগ্রামের মুনতাহা কারিনা ও তার বোন তাসনিমকে এসিডে ঝলসে দেওয়ার দায়ে তাদের আপন খালাতো বোন শারমিন ফারজানা লতিফ ওরফে সাকির (৩৩) ও সাকির ভাই ভাই মুহাম্মদ ইফতেখার লতিফ ওরফে সাদিকে (৩০) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম মহানগর অতিরিক্ত দায়রা জজ নারগিস আক্তারের আদালত এই রায় ঘোষণা করেন।রায় ঘোষণার সময় আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন। পরে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট তসলিম উদ্দিন বলেন, অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত দুজনকেই ২০০২ সালের এসিড নিয়ন্ত্রণ আইনের ৫ (ক) ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে এই রায় ঘোষণা করেছেন। এছাড়া ভাই ইফতেখার লতিফ সাদিকে ৫০ হাজার টাকা এবং বোন শারমীন ফারজানা লতিফকে ৩০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে। 

এই অর্থ অনাদায়ে আরও সাত বছর কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে তাদের। 

বাদীপক্ষে ২৫ জন সাক্ষীর মধ্যে ২২ জনের জবানবন্দি শুনে এই রায় দিলেন আদালত। 

২০১০ সালের ২ অক্টোবর ভোরে চট্টগ্রাম মহানগরীর চকবাজার থানার জয়নগর এলাকায় মুনতাহাদের বাসায় অবস্থানের সময় এই অপরাধ করেন সাকি।সাকির বক্তব্য, তার আগে তার অনুজ মুনতাহা কারিনার বিয়ে ঠিক হয়ে যাওয়ায় তিনি ক্ষুব্ধ ছিলেন। 

ওই ঘটনায় কারিনা ও তাসনিমের বাবা আনোয়ারুল মুবিন বাদী হয়ে নগরের পাঁচলাইশ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ ওই বছরের ১৪ ডিসেম্বর কারিনা ও তাসনিমের খালাতো ভাই সাদি ও সাদির বোন সাকিকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। 

২০১১ সালের ২৮ এপ্রিল তৎকালীন মহানগর দায়রা জজ একেএম শামসুল ইসলামের আদালত পুলিশের দায়ের করা চার্জশিটের ওপর শুনানি শেষে অভিযোগ গঠন করেন। ওই বছরের ৪ ও ৫ মে এ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়।