বগুড়ায় বৃদ্ধ ও চিরিরবন্দরে ভাইকে হত্যা

০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

বগুড়া ব্যুরো ও দিনাজপুর প্রতিনিধি

বগুড়া সদরের তেলিহারা গ্রামে বালু ব্যবসা নিয়ে দু'পক্ষের বিরোধের জের ধরে বৃহস্পতিবার সকালে প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাতে মোকলেছার রহমান নামে এক ব্যক্তি নিহত ও তিনজন আহত হয়েছেন। তাদের শহরতলির গোকুলে টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত মোকলেছার রহমান তেলিহারা উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত লাল মিয়া শাহের ছেলে।

পুলিশ জানায়, বগুড়া সদরের শেখেরকোলা ইউনিয়নের তেলিহারা উত্তরপাড়া এলাকায় করতোয়া নদী থেকে উত্তোলন করা বালু কেনাবেচা নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান সদস্য ইমদাদুল হকের সঙ্গে সাবেক সদস্য জাবেদ আলীর বিরোধ চলে আসছিল। কিছুদিন আগে ওই ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের সদস্য ইমদাদুল হক ভাণ্ডারপাইকা গ্রামে ড্রেন নির্মাণের জন্য বৃহস্পতিবার সকালে উত্তোলন করে রাখা বালু ট্রাকে তুলে নিয়ে যাচ্ছিলেন।

প্রতিপক্ষের লোকজন এ বালু পরিবহনে বাধা দিলে দু'পক্ষের মধ্যে মারধরের ঘটনা ঘটে। এতে তিনজন আহত হয়। খবর পেয়ে মোকলেছার রহমান ঘটনাস্থলে গেলে তাকে লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করা হয়। তাকে টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে তার মৃত্যু হয়।

এদিকে দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে জমি নিয়ে বিরোধে সংঘর্ষে প্রাণ গেল এক ভাইয়ের। নিহতের নাম আব্দুল বারী। আব্দুল বারী ওই গ্রামের ধনিবুল্লাহর ছেলে।

নান্দেরাই গ্রামে বাবা ধনিবুল্লাহর দেওয়া প্রায় ৬ একর জমি নিয়ে দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে বিরোধ চলে আসছিল দু'ভাই আব্দুল গনি ও আব্দুল বারীর মধ্যে। গত ৫ জুন বড়ভাই আব্দুল গণির লোকজন ধারালো অস্ত্র নিয়ে বিরোধপূর্ণ ওই জমিতে কাজ করতে গেলে ছোট ভাইয়ের লোকজন বাধা দেয়। এ সময় ছোট ভাই আব্দুল বারীর লোকজন বড়ভাই আব্দুল গণির মেয়ে ও ছেলেদের ধাওয়া করে তহমিনাকে মারধর করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তহমিনার বড়ভাই আব্দুল ওয়াদুদ বোনের হাতে থাকা ছুরি নিয়ে বিপক্ষ লোকজনের ওপর এলোপাতাড়ি আঘাত করে। আঘাতে আব্দুল বারীপক্ষের আব্দুল খালেকের পা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এ ছাড়া আব্দুল বারী ও তার স্ত্রী আকতার বানু ও ছেলে মুসা ছুরির আঘাতে গুরুতর আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে চিরিরবন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাদের দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার দুপুরে আব্দুল বারী মারা যায়।

চিরিরবন্দর থানার ওসি হারেসুল ইসলাম জানান, ওই ঘটনায় গত ৫ ফেব্রুয়ারি আব্দুল বারীর ছেলে আহেদুল বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।

© সমকাল 2005 - 2019

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭ (প্রিন্ট পত্রিকা), +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ (অনলাইন) । ইমেইল: [email protected]