দু'পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫০ হাসপাতালেও হামলা

১২ জুন ২০১৯

কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি

কেন্দুয়া উপজেলার ৯নং নওপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম এবং ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সভাপতি উসমান গণি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছেন। সংঘর্ষে আহত কয়েকজনকে কেন্দুয়া উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে গিয়েও মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে প্রতিপক্ষের লোকজন রোগীদের ওপর সশস্ত্র হামলা চালায়। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জীনাত সাবাহ এ হামলার ঘটনা পুলিশকে জানালে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

নওপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি উসমান গণি গ্রুপের মহিউদ্দিনের কাছ থেকে গত বৈশাখে ধান কেটে দেওয়ার জন্য কয়েক হাজার টাকা নেন কান্দাপাড়া গ্রামের কৃষিশ্রমিক হাছু মিয়া। পরে হাছু মিয়া মহিউদ্দিনের জমির ধান কেটে দেননি, এমনকি টাকাও ফেরত দেননি। গত সোমবার বিকেলে হাছু মিয়াকে দুর্গাপুর মোড় বাজার এলাকায় পেয়ে মহিউদ্দিন তার ধান কেটে না দেওয়ার বিষয় জানতে চান এবং টাকা ফেরত না দিলে দুর্গাপুর মোড় এলাকায় আসতে নিষেধ করেন। এই খবর জানতে পেরে ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম গ্রুপের নজরুলসহ কয়েকজন মঙ্গলবার সকালে হাছু মিয়াকে তাদের মোটরসাইকেলে উঠিয়ে দুর্গাপুর মোড় এলাকায় মহড়া দিতে থাকলে উসমান গণি গ্রুপের লোকজন বাধা দেয়। সকাল ১০টার দিকে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় উভয়পক্ষের ৫০ জন আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১৭ জনকে আটক এবং একই সঙ্গে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। পরে সকাল ১১টার দিকে হাসপাতালে সশস্ত্র হামলা চালানো হয়। হাসপাতালে হামলার পর আশঙ্কাজনক অবস্থায় আব্দুল মজিদ, রাব্বাগণি, জোনাইদ, ইমু রানী, খায়রুল, নূরুল আমিন, দুলাল, অনু মিয়া, সালাম, সুমন, হাবিবুর, মাজহারুল, আয়নাল, গোলাম রব্বানীসহ ১৭ জনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। হাসপাতাল ও দুর্গাপুর মোড়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

নেত্রকোনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মোহাম্মদ শাহজাহান মিয়া, কেন্দুয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মাহমুদুল হাসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কেন্দুয়া থানার ওসি মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান বলেন, দুর্গাপুর মোড় এলাকায় চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সভাপতি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে আহতদের ওপরও হাসপাতালে হামলা চালানো হয়।

© সমকাল 2005 - 2019

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭ (প্রিন্ট পত্রিকা), +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ (অনলাইন) । ইমেইল: [email protected]