পাঁচ বছরের প্রেম, ৯ বছরের সংসার

১৬ জুলাই ২০১৯ | আপডেট: ১৬ জুলাই ২০১৯

বিনোদন প্রতিবেদক

২০১০ সালের ১৬ জুলাই ফারুকী ও তিশা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন

‘ভালো সময় হোক কিংবা খারাপ, তথাকথিত সাফল্য কিংবা ব্যর্থতা, চাপে এবং তাপে, নিষ্প্রাণ বা প্রাণবন্ত, ঝলমলে বা একঘেঁয়ে মুহুর্তে , নয় বছর এইরকম পাশে থাকার জন্য ভালোবাসা হ্যাপি অ্যানিভারসারি টু আস'

বিবাহবার্ষিকীর দিনে ফেসবুকে তিশাকে জড়িযে ধরে শুভ কামনা জানানোর একটি ভিডিও পোস্ট করে ক্যাপশনে কথাগুলো লিখেছেন জনপ্রিয় নির্মাতা মোস্তাফা সরওয়ার  ফারুকী। এছাড়াও দুজনই শেয়ার করেছেন যুগল ছবি। 

বিবাহিত জীবনের ৯ বছর পার করছেন এ জুটি। তারকা দম্পতি হলেও সাধারণ বাঙ্গালী পরিবারের মতো বেশ সুখেই জীবন অতিবাহিত করছেন তারা। বিবাহিত বার্ষিকী হিসেবে আজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুভ কামনায ভাসছেন তারা। সবার শুভ কামনায় আবেগি হয়ে পড়েছেন ফারুকী-তিশা দু’জনই। 

বিয়ের আগে পাঁচ বছর প্রেম করেছেন ফারুকী-তিশা। ২০০৫ সালের ৩১ অক্টোবর এক শুটিংয়ে তিশাকে ভালো লাগার কথা বললে তিশাও তার ভালোবাসার কথা ফারুকীকে জানান। এর পাঁচ বছর পর ২০১০ সালের ১৬ জুলাই ফারুকী ও তিশা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। যদিও তাদের প্রেমের পর্ব শুরু হয় অনেক দিন আগে থেকেই। 

ফারুকী বলেন, ‘আমাদের দেখা হয়েছিল শুটিং সেটে। আমরা বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি, সেটাও শুটিং সেটে। একসঙ্গে দারুণভাবে নয়টি বছর কেটে গেছে, ছোটখাট বিষয় ও সৃজনশীল কাজ মিলিয়ে।’

ফারুকী আরও বলেন, ‘আমি জানি আমাদের বিষয়টি অনন্য কিছু নয়, সারা বিশ্বের অনেক মহান চলচ্চিত্রনির্মাতা ও অভিনেত্রী এমন জোড় বেঁধেছেন। কিন্তু পেছনে ফিরে দেখতে খুব ভালো লাগে এবং দেখি যখন একসঙ্গে কাজ করি তখন আমরা কীভাবে একে অপরের পরিপূরক ও অনুপ্রেরণা। আমি অনুভব করি জাদুকরি কিছু ঘটছে, কিছুটা বিদ্যুৎ স্ফুলিঙ্গের মতো।

সম্ভবত কাজের মাধ্যমে আমাদের রোমান্স জমাট বাঁধে এবং রোমান্সের মাধ্যমে কাজ জমে উঠে। যা দেখা যায় ‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার’, ‘টেলিভিশন’, ‘নো বেড অব রোজেস’-এ। আশা করি ‘স্যাটারডে আফাটারনুন’-এও পৃথিবী এই সুঘ্রাণ পাবে।’

© সমকাল ২০০৫ - ২০২০

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ (প্রিন্ট), +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ (অনলাইন) | ইমেইল: [email protected] (প্রিন্ট), [email protected] (অনলাইন)