বন্যার প্রভাবে সবজির দাম বেড়েই চলেছে

১৯ জুলাই ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক

কয়েকদিন ধরে অতিবৃষ্টি আর বন্যার প্রভাব পড়েছে রাজধানীর কাঁচাবাজারে। হঠাৎ
করেই বেড়েছে কাঁচামরিচ, করলা, টমেটো, বরবটি ও শসাসহ বিভিন্ন সবজির দাম।
তাছাড়া কয়েক সপ্তাহ ধরে চড়া দামে বিক্রি হওয়া পণ্য পেঁয়াজ, রসুন ও আদার দাম
আরও বেড়েছে। সবজির দাম বেড়ে যাওয়ায় ব্রয়লার মুরগি ও ডিমের দাম আরও বেড়েছে।
এ ছাড়া মাংসসহ অন্যান্য পণ্যের দামে তেমন পরিবর্তন হয়নি।


খুচরা বাজারে গত সপ্তাহজুড়ে প্রতি কেজি কাঁচামরিচ মানভেদে ১৬০-১৮০ টাকায়
বিক্রি হয়। গতকাল ২৫০ গ্রাম কাঁচামরিচ ৫০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা যায়। এ
হিসাবে প্রতি কেজি মরিচের দাম পড়েছে ২০০ টাকা। বাজারে শসার দামও বাড়তি।
প্রতি কেজি শসা ৮০-৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। করলা ও বরবটির কেজি ৮০ টাকা এবং
টমেটো কিনতে গুনতে হচ্ছে ১০০ টাকা। এ ছাড়া অন্যান্য সবজির দাম কেজিতে ১০
থেকে ২৫ টাকা বেড়েছে। প্রতি কেজি চিচিঙ্গা, কাঁকরোল, বেগুন ৬০ থেকে ৭০
টাকা। ঢেঁড়স, পটোল, ঝিঙ্গা ও পেঁপে ৪০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।


পাইকারি আড়ত কারওয়ানবাজার ঘুরে দেখা যায়, অন্য সময়ের তুলনায় আড়তে মরিচ
কিছুটা কম। এই বাজারে পাইকারিতে কাঁচামরিচের দাম সপ্তাহের ব্যবধানে তিনগুণ
বেড়েছে। মরিচ বিক্রেতা মো. লিটন বলেন, এখন প্রতি কেজি কাঁচামরিচ বিক্রি
হচ্ছে ১২০-১৩০ টাকায়, যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকা। অতিবৃষ্টির
কারণে মরিচ ঝরে যাওয়ায় মোকামে এখন ক্ষেত থেকে কম আসছে। এ কারণে বাড়তি দামে
আনতে হচ্ছে।


সবজি বিক্রেতারা বলেন, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বন্যা ও টানা বৃষ্টির কারণে
সবজির দাম বাড়ছে। উত্তরাঞ্চলের বন্যার কারণে কাঁচামরিচ ও সবজির সরবরাহ কম
থাকায় দাম বেড়ে যাচ্ছে। বন্যার প্রভাবে কাঁচাবাজারে পণ্যের দাম বাড়তে
থাকবে।


তবে বিক্রেতারা অভিযোগ করেন, যৌক্তিক কারণ ছাড়া গত কয়েক সপ্তাহ পেঁয়াজ,
রসুন ও আদা কিনতে চড়া দাম দিতে হচ্ছে। একই সময় কয়েক জেলায় বন্যা থাকার
অজুহাত দেখিয়ে কাঁচামরিচ ও সবজির দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এতে
বাজারের খরচ বেড়ে গেছে অনেক।


পেঁয়াজের দাম আবার বেড়ে গেছে। গতকাল প্রতি কেজি পেঁয়াজ সপ্তাহের ব্যবধানে
১০ টাকা বেড়ে দেশি পেঁয়াজ ৪৫ থেকে ৫০ টাকা ও ভারতীয় পেঁয়াজ ৪০ থেকে ৪৫
টাকায় বিক্রি হয়। চীনা রসুনের দাম কেজিতে ২০ টাকা বেড়ে ১৬০ টাকা থেকে ১৮০
টাকা হয়েছে। দেশি রসুন ১২০ থেকে ১৩০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। এ ছাড়া চীনা আদা
বিক্রি হচ্ছে ১৪০ টাকা এবং ইন্দোনেশিয়ার আদা ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা দরে।


সপ্তাহের ব্যবধানে ব্রয়লার মুরগির দাম ১০ টাকা বেড়ে প্রতি কেজি ১৩৫ থেকে
১৪০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। লেয়ার ১৯০ থেকে ২০০ টাকা প্রতি কেজি। আকারভেদে
সোনালি মুরগি বিক্রি হচ্ছে প্রতি পিস ২২০ টাকা থেকে ২৫০ টাকা। এ সপ্তাহে
গরুর মাংস বাজারভেদে ৫৪০ থেকে ৫৬০ টাকা। ছাগলের মাংস ৭৫০ ৮০০ টাকায় বিক্রি
হচ্ছে। তাছাড়া গত সপ্তাহে ডিমের দাম ডজনে ৫ টাকা বেড়ে ১২০ থেকে ১২৬ টাকা
হয়েছে।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২০

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ (প্রিন্ট), +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ (অনলাইন) | ইমেইল: [email protected] (প্রিন্ট), [email protected] (অনলাইন)