বিয়ের গাড়িতে ট্রেনের ধাক্কা, বর-কনেসহ নিহত ১০

১৬ জুলাই ২০১৯

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

উল্লাপাড়ায় ট্রেনের ধাক্কায় দুমড়েমুচড়ে যাওয়া মাইক্রোবাস-সমকাল

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় বিয়ের মাইক্রোবাসে ট্রেনের ধাক্কায় বর-কনেসহ অন্তত ১০ জন নিহত হয়েছেন। মাইক্রোবাসের চালক বাদে বাকিরা সবাই আত্মীয়। গতকাল সোমবার বিকেল সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার সলপ স্টেশনের পাশের অরক্ষিত রেলক্রসিংয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সঙ্গে মাইক্রোবাসটির ধাক্কা লাগে। এ ঘটনায় ট্রেনের যাত্রীসহ আরও ১০ জন আহত হয়েছেন।

নিহতরা হলেন- উল্লাপাড়ার চরঘাটিনা গুচ্ছগ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের মেয়ে কনে সুমাইয়া খাতুন (১৮), সদর উপজেলার কালিয়া হরিপুর ইউনিয়নের কান্দাপাড়া গ্রামের আলতাব হোসেনের ছেলে বর রাজন হোসেন (২২), তার মামাতো ভাই শিশু আলিফ হোসেন (১০), একই ইউনিয়নের চুনিয়াহাটি গ্রামের মৃত মহির উদ্দিনের ছেলে ভাষান শেখ (৫৫), রামগাঁতী গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেলে আব্দুস সামাদ (৫০), তার স্ত্রী হাওয়া বেগম (৪৫), ছেলে শাকিল হোসেন (২০), শহরের সয়াধানগড়া মহল্লার সুরুজ আলীর ছেলে আব্দুল আহাদ (২৫) ও মাইক্রোবাসের চালক কামারখন্দ উপজেলার জামতৈল গ্রামের মন্টু শেখের ছেলে স্বাধীন (৩০)।

উল্লাপাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গোলাম মোস্তফা হতাহতের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, উন্মুক্ত লেভেল ক্রসিং পারাপারের সময় বিয়ের বহরের একটি মাইক্রোবাস পদ্মা এক্সপ্রেসের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে বেশ কিছুদূর পর্যন্ত ছেঁচড়ে যায়। এতে ৯ জন মারা যান। নিহতদের মধ্যে আটজনই নিকটাত্মীয়। অন্যজন মাইক্রোবাসের চালক। দুর্ঘটনায় মাইক্রোবাসটি দুমড়েমুচড়ে যায়। তিনি আরও জানান, অরক্ষিত রেলক্রসিংয়ের কারণেই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। ওই ক্রসিংয়ে কোনো ব্যারিয়ার বা বার্জ ছিল না। এমনকি সেখানে রেল বিভাগের কোনো পাহারাও নেই।

সিরাজগঞ্জ জিআরপি থানার ওসি হারুন মজুমদার ও দমকল বাহিনীর সহকারী উপ-পরিচালক আব্দুল হামিদ জানান, বরযাত্রীবাহী দুটি বিয়ের গাড়ি উল্লাপাড়ার ঘাটিনা থেকে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কালিয়া কান্দাপাড়ায় যাচ্ছিল। সলপ স্টেশনের উত্তর পাশে উন্মুক্ত লেভেল ক্রসিং পারাপারের সময় একটি মাইক্রোবাস (ঢাকা মেট্রো-চ-১৫-৪১৫৯) ট্রেনের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে ঘটনাস্থলেই আটজন মারা যান। হাসপাতালে নেওয়ার পর আরেকজনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আহত হন ট্রেনের যাত্রীসহ কমপক্ষে ১০ জন। আহত কয়েকজনকে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে বরের দুলাভাই সুমন শেখকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগের পাকশীর বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) মিজানুর রহমান জানান, ক্রসিংটি রেল বিভাগের নির্ধারিত লেভেল ক্রসিং নয়। স্থানীয়রা নিজেদের চলাচলের স্বার্থে তা উন্মুক্ত করে রেখেছে। দুর্ঘটনার পর ট্রেনটি সলপ স্টেশনে দাঁড়িয়ে ছিল। বিক্ষুব্ধ লোকজন ট্রেনের ক্ষতি করার চেষ্টা করে। কিন্তু পুলিশ ও দমকল বাহিনী তাদের নিয়ন্ত্রণ করে। এ ঘটনার পর ট্রেনটি দেড় ঘণ্টা দেরিতে ঢাকার দিকে ছেড়ে যায়।

তদন্ত কমিটি গঠন :এ ঘটনায় চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় ব্যবস্থাপক মিজানুর রহমান জানান, রেলের বিভাগীয় পরিবহন কর্মকতা (ডিটিও) আব্দুল্লাহ আল মামুনকে আহ্বায়ক করে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- পাকশী রেলওয়ের বিভাগীয় প্রকৌশলী-২ আরিফুল ইসলাম টুটুল, বিভাগীয় যান্ত্রিক প্রকৌশলী (লোকো) অশোক রায় ও বিভাগীয় মেডিকেল অফিসার এস কে রায়। কমিটিকে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

রেলপথমন্ত্রীর শোক :সিরাজগঞ্জে ট্রেনের ধাক্কায় মাইক্রোবাসের যাত্রী নিহত হওয়ার ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। গতকাল এক শোক বার্তায় তিনি এ ঘটনায় নিহতদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাদের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২০

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ (প্রিন্ট), +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ (অনলাইন) | ইমেইল: samakalad@gmail.com (প্রিন্ট), ad.samakalonline@outlook.com (অনলাইন)