মৃত্যুর জন্য ৪ জনকে দায়ী করে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

১৬ জানুয়ারি ২০২০

শিবগঞ্জের ( চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি

এনামুল হকের লাশের পাশে স্বজনরা -সমকাল

চাঁপাইনবাবগঞ্জের ঋণের দায়ে এক ব্যবসায়ীর আত্মহত্যার অভিযোগ উঠেছে। আর এ জন্য তিনি সুইসাইড নোটে ৪ জনকে দায়ী করেছেন।

নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড কর্তৃপক্ষের চাপেই রড-সিমেন্ট ব্যবসায়ী এনামুল হক নিজের নামে লাইসেন্স করা একনলা বন্দুক দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে স্থানীয় ঈদগাহ মাঠে ওই ব্যবসায়ীর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় ইসলামী ব্যাংক চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখার ব্যাংক ম্যানেজার মোহাম্মদ শাহজাহান এতে অংশ নিতে আসলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পরে উপস্থিত ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন।

এনামুল হক (৬০) পৌর এলাকার পুরাতন বাজারের মেসার্স সাজ্জাদ আহম্মেদ অ্যান্ড সন্সের মালিক ও মৃত সাজ্জাদ আহম্মেদের ছেলে।

সাজ্জাদ আহম্মেদ অ্যান্ড সন্সের ম্যানেজার শাহিন আলী বলেন, ইসলামী ব্যাংক চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখার লিগ্যাল অ্যাডভাইজার অ্যাডভোকেট একরামুল হক বিভিন্নভাবে এনামুল হককে টাকা ফেরত দেয়ার জন্য চাপ দিয়ে আসছিলেন। আইনজীবী এবং ব্যাংক ঋণের জন্য কর্তৃপক্ষের চাপের কারণে তিনি আত্মহত্যা করতে পারেন বলে ধারণা করছি।

এনামুল হকের ভাই সাহাদাত বলেন, ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে হলে মরগেজ দিতে হয়। আর মরগেজের মাধ্যমে ইসলামী ব্যাংক চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখায় ঋণ নিয়েছিলেন এনামুল। ব্যবসা-বাণিজ্য ভালো না হওয়ায় ব্যাংক ঋণের পরিমাণ বেশি হয়ে যায়। এ কারণে এনামুল সময়মতো ব্যাংকের ঋণ পরিশোধ করতে পারেননি। ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে মরগেজের মাধ্যমে ঋণ পরিশোধের কথা বলে তারা বলে, ‘মরগেজ শুধু করতে হয়, তাই করেছি। আপনাকে টাকায় ঋণ পরিশোধ করতে হবে।' এ নিয়ে ব্যাংক অনেকগুলো মামলা করায় আদালতে হাজিরা দিয়ে আসছিলেন এনামুল। বুধবার হাজিরা দেয়ার জন্য অফিসের ২য় তলায় উঠেই তিনি হতাশ ও আতঙ্কিত হয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন।

নিহতের আরেক ভাই সিরাজুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, ব্যাংকের ম্যানেজারের কারণেই তার ভাইয়ের এই পরিণতি ঘটেছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মো. জিয়াউর রহমান জানান, এনামুল হকের সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে পুলিশ। ওই সুইসাইড নোটে তিনি ব্যাংকের ঋণের কারণে হতাশ হয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে ইঙ্গিত করে গেছেন। সুইসাইড নোটে তিনি ব্যাংকের সাবেক ম্যানেজার আকতার, অ্যাডভোকেট একরামুল, অফিসের দুই কর্মচারী কাজল ও মাহতাবের নাম লিখে যান। 

তিনি জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে।

তবে ইসলামী ব্যাংক চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখা ম্যানেজার মোহাম্মদ শাহজাহান অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তিনি টাকার জন্য কখনও চাপ বা হুমকি দেননি। বরং তিনি তাকে সহায়তার কথা বলেছিলেন।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২০

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ (প্রিন্ট), +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ (অনলাইন) | ইমেইল: samakalad@gmail.com (প্রিন্ট), ad.samakalonline@outlook.com (অনলাইন)