জাপানি নকশায়

১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

হালের ফ্যাশনে এখন চলছে নানা ধরনের মোটিফ। কখনও দেশীয় পাহাড়ি মোটিফ, কখনও ভিনদেশি। ডিজাইনাররা বরাবরই চেষ্টা করেন ক্রেতাদের নতুন কিছু উপহার দিতে। সে লক্ষ্যেই গ্রামীণ ইউনিক্লো এবার কাজ করেছে বন্ধু দেশ জাপানের কিছু মোটিফ নিয়ে

ফ্লোরিডা এস রোজারিও

ফ্যাশন বরাবরই পরিবর্তশীল। কালের ধারাবাহিকতায় পোশাকের ধরনও পরিবর্তন হতে থাকে। একেক সময় একেক ধরনের ফ্যাশন চলতে থাকে। ফলে পোশাকের কারিগররাও এ ব্যাপারে বেশ সচেতন। বিভিন্ন রকম মোটিফ, রং আর কাটিংয়ের আদলে রূপ নেয় ফ্যাশনসম্মত পোশাক। আর তরুণরা তো এ ব্যাপারে এগিয়ে। হালের ফ্যাশনে এখন চলছে নানা ধরনের মোটিফ। কখনও দেশীয় পাহাড়ি মোটিফ, কখনও ভিনদেশি। ডিজাইনাররা বরাবরই চেষ্টা করেন ক্রেতাদের নতুন কিছু উপহার দিতে। সে লক্ষ্যেই গ্রামীণ ইউনিক্লো এবার কাজ করেছে বন্ধু দেশ জাপানের কিছু মোটিফ নিয়ে। দেশীয় কাপড়ে জাপানি মোটিফের কম্বিনেশন বেশ আকর্ষণীয়। দেশীয় ঐতিহ্যের সঙ্গে জাপানি ঐতিহ্যের মেলবন্ধনে তৈরি এসব পোশাক গতানুগতিক ধারার বাইরে গিয়ে সংযুক্ত করেছে এক ভিন্নমাত্রার ফ্যাশন। ফলে ভোক্তাদের ফ্যাশন সচেতনতা বেড়ে যাবে।

জাপান বরাবরই চমকপ্রদ ও ফ্যাশন সচেতন একটি দেশ। ফ্যাশন জগতে এর নাম অনন্য। জাপান তথা টোকিওর বিভিন্ন ঐতিহ্যের আদলে ডিজাইনাররা তৈরি করেছেন গ্রামীণ ইউনিক্লোর এসব দুর্দান্ত কালেকশন। নতুন এই চমকপ্রদ পোশাকের মধ্য দিয়ে জাপানের ঐতিহ্য ও ধারাকে তুলে ধরেছে এই ফ্যাশন ব্র্যান্ডটি।

জাপানি মোটিফ কালেকশন নিয়ে কথা বলেছেন গ্রামীণ ইউনিক্লোর ম্যানেজিং ডিরেক্টর নাজমুল হক। তিনি বলেন, 'ফ্যাশন জগতে প্রসিদ্ধ দেশগুলোর মধ্যে জাপান অন্যতম। অনেক আগে থেকেই জাপানি ফ্যাশনকে মানুষ রুচিশীল বলে বিবেচনা করে আসছে। বাংলাদেশে ব্যবসা শুরুর পর থেকেই আমরা গ্রাহকদের নতুন কিছু দেওয়ার চেষ্টা করেছি। সে বিবেচনায় এবারও গ্রাহককে উদ্ভাবনী ডিজাইন ও ঐতিহ্যের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে জাপানি মোটিফ নিয়ে কাজ করা হয়েছে।'

ভোক্তাদের সাড়ার ব্যাপারে তিনি আরও জানান, 'এ বছরই (২০২০ সাল) জাপানি কোম্পানি হিসেবে বাংলাদেশে সোশ্যাল বিজনেসের ১০ বছর পূর্ণ হচ্ছে আমাদের। দীর্ঘ পথপরিক্রমায় গ্রাহকদের সাড়া ছিল বলেই এতদূর আসতে পেরেছি। উদ্ভাবনী ডিজাইন ও ঐতিহ্যের ছোঁয়া থাকায় বরাবরের মতো জাপানি মোটিফেও আমরা ভালো সাড়া পাচ্ছি। সবাই গতানুগতিক নকশা নিয়ে কাজ করছে। অনেক ক্ষেত্রে ব্যবহূত নকশার কোনো কারণ বা যৌক্তিকতা খুঁজে পেতে কষ্ট হয়। কিন্তু আমরা চেষ্টা করেছি জাপানের ঐতিহ্য ব্যবহার করে গ্রাহককে বিশেষ কিছু উপহার দিতে। এবারে ব্যবহূত জাপানি মোটিফের সবই ঐতিহ্যবাহী এবং প্রত্যেকটারই একটি উপকথা আছে। আমরা গ্রাহককে সেসব গল্পের সঙ্গে পরিচয় করাতে চাই। তাই আমাদের এই আয়োজন।'

গতানুগতিক ধারা থেকে বের হয়ে ভোক্তাদের নতুন কিছু দেওয়ার জন্যই গ্রামীণ ইউনিক্লোর এমন উদ্যোগ। এখনকার ছেলেমেয়েরা ফ্যাশনের ব্যপারে নতুনত্ব খোঁজে। তাই ভিন্নমাত্রার কিছু করার চেষ্টায় এই মোটিফ।

ঢাকাতে বসবাসরত জাপানি নাগরিক নাতসুমি হারাদা জানালেন তার অভিজ্ঞতার কথা। বাংলাদেশে এসেছেন প্রায় পাঁচ বছর। বাংলাদেশের ঐতিহ্যের টানেই এত বছর কাটিয়ে দিচ্ছেন বলে জানান তিনি। এ দেশের পোশাক তার বেশ পছন্দের। তাই নিজ দেশের ঐতিহ্যবাহী পোশাকের পাশাপাশি এদেশীয় ফ্যাশনকেও রেখেছেন তালিকায়। গ্রামীণ ইউনিক্লোর এই নতুন কালেকশনে বেশ আনন্দিত তিনি। নিজ দেশের ঐতিহ্যবাহী মোটিফে তৈরি পোশাক দেখতে কার না ভাল লাগে! এ কথাও জানালেন নাতসুমি হারাদা।

গ্রামীণ ইউনিক্লোর নতুন এ কালেকশনে ছেলেদের জন্য থাকছে জাপানি মোটিফের বিভিন্ন রংয়ের শার্ট, সলিড, স্ট্রাইপড ও প্রিন্টেড পোলো শার্ট, টি-শার্ট, জিন্স, চিনো প্যান্ট, ইজি প্যান্টসহ বিভিন্ন আইটেম। মেয়েদের জন্য বিভিন্ন রংয়ের কামিজ, টপস্‌, টিউনিক, জিন্স্‌, লেগিংস, পালাজ্জোসহ থাকছে অনেক আইটেম। এসব আইটেম পাওয়া যাচ্ছে ৩৯০ থেকে ১৯৯০ টাকায়।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২০

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ (প্রিন্ট), +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ (অনলাইন) | ইমেইল: samakalad@gmail.com (প্রিন্ট), ad.samakalonline@outlook.com (অনলাইন)