করোনায় নারীর চেয়ে পুরুষই কেন বেশি মারা যাচ্ছে?

২৫ মার্চ ২০২০ | আপডেট: ২৫ মার্চ ২০২০

অনলাইন ডেস্ক

প্রতি মুর্হূর্তে বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। সংখ্যার হিসেবে নারীদের চেয়ে পুরুষই এই ভাইরাসের আক্রমণের শিকার হয়ে মারা যাচ্ছে বেশি।

তুলনামূলক নারীদের চেয়ে পুরুষদের বেশি মারা যাওয়ার কারণ হিসেবে গবেষকরা তাদের ধূমপান, মদপান ও রুগ্নস্বাস্থ্যকে দায়ী করছেন বলে সিএনএনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ইতালির জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের তথ্য অনুযায়ী দেশটিতে করোনা আক্রান্তের মধ্যে ৬০ ভাগই পুরুষ। মৃতের সংখ্যা হিসেবে ৭০ ভাগের বেশি তারা; আর নারীরা মারা গেছেন ৩০ ভাগ।

দক্ষিণ কোরিয়াতে করোনায় আক্রান্ত পুরুষের চেয়ে নারী বেশি। তবে এ দেশেও মৃত্যুহারে এগিয়ে পুরুষ। মোট যতজনের মৃত্যু হয়েছে তাদের ৫৪ ভাগই পুরুষ।

যুক্তরাষ্ট্র এ সংক্রান্ত কোনও তথ্য প্রকাশ করেনি। তবে হোয়াইট হাউসের করোনা মোকাবিলা বিষয়ক কার্যক্রমের সমন্বয়ক ড. দেবরা বিক্স বলেছেন, ইতালিতে দেখা যাচ্ছে এই ভাইরাসের আক্রান্ত হয়ে নারীদের চেয়ে পুরুষরা দ্বিগুণ হারে মারা যাচ্ছে।

ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডনের অধ্যাপক ও গো্বাল হেলথ ফিটটি/ফিফটির সহপরিচালক সারাহ হকিস বলেন, প্রাপ্ত তথ্যে দেখা গেছে নারীদের চেয়ে পুরুষের মৃত্যুহার বেশি। অধিকাংশ সময়ই দেখা যায় পুরুষদের এমন কিছু রোগ থাকে যাতে এই ভাইরাসের সংক্রমণ বেশি ঝুঁকিতে ফেলে। এতে মৃত্যুও বাড়ে।

সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ড. লুইস অস্ত্রোসকি জিসনার বলেন, সার্স ও ইবোলার মতো করোনাভাইরাসেও পুরুষের মৃত্যু বেশি। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার কারণে এটি হতে পারে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সারাহ হকিস বলেন, অধিকাংশ দেশেই দেখা যায় নারীদের চেয়ে পুরুষরা বেশি ধূমপান করেন; মদপান করেন। এ কারণে স্পষ্টভাবেই মৃত্যুহার পার্থক্য সৃষ্টি করে দেয়।

ইতালির জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের প্রকাশ করা তথ্যানুযায়ী যারা ধূমপান করেন তাদের অধূমপায়ীদের চেয়ে করোনায় মৃত্যুঝুঁকি বেশি।

গবেষকরা বলছেন, ইতালিতে চালানো এক জরিপে দেখা গেছে একই বয়সের নারীদের চেয়ে পুরুষের উচ্চরক্তচাপ বেশি। আর চীনেও প্রায় একই ঘটনা ঘটেছে। করোনায় নারীদের চেয়ে পুরুষদের বেশি মারা যাওয়ার এটিও কারণ।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২০

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ (প্রিন্ট), +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ (অনলাইন) | ইমেইল: [email protected] (প্রিন্ট), [email protected] (অনলাইন)