৪ জনের বিরুদ্ধে ঠিকাদারের মামলা

যন্ত্রণায় চিৎকার করছে গুলিবিদ্ধ শিশু লামিয়া, অস্ত্রোপচার হয়নি

প্রকাশ: ২৯ আগস্ট ২০ । ২০:৫৯

খুলনা ব্যুরো

ফাইল ছবি

গুলিবিদ্ধ হওয়ার ৩০ ঘণ্টা পার হলেও খুলনায় শিশু লামিয়ার পায়ে এখনও অস্ত্রোপচার করা হয়নি। শনিবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত গুলিবিদ্ধ পা নিয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের বিছানায় যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিল শিশুটি। এদিকে শনিবার খুলনা সদর থানায় অজ্ঞাতপরিচয় চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন ঠিকাদার ইউসুফ আলী। তার ছোড়া গুলিই লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে লামিয়ার পায়ে বিদ্ধ হয়।

জানা গেছে, হাসপাতালের তৃতীয় তলায় ১১-১২ নম্বর ওয়ার্ডের ২২ নম্বর শয্যায় ভর্তি আছে লামিয়া। কিছুক্ষণ পর পর যন্ত্রণায় চিৎকার করে উঠছে শিশুটি। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক সার্জারি বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার সুব্রত কুমার মণ্ডল বলেন, বুলেটটি লামিয়ার উরুর হাড়ের (ফিমার) মধ্যে আটকে আছে। এ জন্য অস্ত্রোপচার হাড়জোড় বিশেষজ্ঞ ছাড়া হবে না। যদিও সে আমাদের ওয়ার্ডে ভর্তি আছে, তাকে দেখভাল করছে হাড়জোড় বিভাগ। তারা কিছু পরীক্ষা নিরীক্ষা করছে। অস্ত্রোপচার কখন হবে তারা বলতে পারবে। এদিকে, হাসপাতালের হাড়জোড় বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মেহেদী নেওয়াজের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

শনিবার বিকেলে লামিয়ার মামা তরিকুল ইসলাম বলেন, এক বছর বয়সে লামিয়ার বাবা তাকে তার মাসহ নানাবাড়ি ফেলে রেখে চলে যায়। এরপর থেকে লামিয়ার মা অন্যের বাসায় কাজ করে। গুলি লাগার জায়গায় রক্তক্ষরণ বন্ধ হলেও যন্ত্রণায় সারারাত ঘুমাতে পারেনি সে। এখন ভীষণ যন্ত্রণা হচ্ছে। ডাক্তারা বলেছেন জটিল অপারেশন। এ জন্য দেরি হবে। ঠিকাদার কোনো খোঁজ নিয়েছেন কিনা- এমন প্রশ্নে লামিয়ার মামা বলেন, ঘটনার পর ঠিকাদার হাসপাতালে লোক পাঠিয়েছিলেন। শনিবার নিজেও কথা বলেছেন। চিকিৎসার সব খরচ ঠিকাদার দিতে চাইছেন। কিন্তু পাঠিয়েছেন মাত্র দুই হাজার টাকা।

খুলনা সদর থানার ওসি আশরাফুল আলম জানান, ঠিকাদার শেখ ইউসুফ আলী চার অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা করেছেন। শুক্রবার মধ্যরাতে মামলাটি হয়। এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। এ ঘটনায় ব্যবহৃত পিস্তল, ১০ রাউন্ড গুলি ও দুই রাউন্ড গুলির খোসা জব্দ করা হয়েছে।

শুক্রবার নগরীর পূর্ব বানিয়াখামার এলাকায় বাড়ির সামনে দাঁড়ানো অবস্থায় ইকবালনগর সরকারি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী লামিয়া গুলিবিদ্ধ হয়। পরে জানা যায়, একই এলাকার ঠিকাদার ইউসুফ আলী কিছু চাঁদাবাজকে লক্ষ্য করে দুই রাউন্ড গুলি ছুড়েছেন। এর একটি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে লামিয়ার পায়ে বিদ্ধ হয়।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com