ওমর সানী: তিন দশকের সফল নায়ক

প্রকাশ: ০১ সেপ্টেম্বর ২০ । ১৩:১৭ | আপডেট: ০১ সেপ্টেম্বর ২০ । ১৩:২৭

বিনোদন প্রতিবেদক

ওমর সানী। ঢাকাই ছবির সফল এক নায়কের নাম। সাফল্য নিয়েই সিনেমায় অভিনয়ে সাফল্যের প্রায় তিন দশক সময় পার করলেন তিনি। নব্বই দশকে নায়ক হিসেবে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে অবস্থান করা ওমর সানীর অভিনয় যাত্রা থেমে নেই আজও। 

ওমর সানী নায়ক হিসেবে যেমন সফল তেমনি খলনায়ক হিসেবেও কাঁপিয়েছেন পর্দা। তবে এখন অভিনয়ে কিছুটা কম দেখা গেলেও দর্শকদের ভালোবাসায় এখনও তাকে ঘিরে বিদ্যমান। 

সিনেমায় ওমর সানীর যাত্রা শেখ নজরুল ইসলামের ‘চাঁদের আলো’ দিয়ে। পরে ফখরুল হাসান বৈরাগীর ‘অগ্নিপথ’ এবং আফতাব খান টুলুর ‘আমার জান’ সিনেমার শুটিং করছিলেন। কিন্তু ‘চাঁদের আলো’ সিনেমাই আগে মুক্তি পায়। সিনেমাটি সেই সময় দারুণ ব্যবসা সফল হয়। সে সাফল্যের ধারবাহিকতা আর থামেনি সে সময়ে। 

অভিনয় জীবনের প্রায় তিন দশকের পথচলা এবং নিজের প্রাপ্তি অপ্রাপ্তি প্রসঙ্গে ওমর সানী বলেন,‘ অবশ্যই আমি শুরুতেই মহান আল্লাহর কাছে অসীম কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি আমার বাবা মায়ের কাছে যাদের কারণে এই পৃথিবীতে আসা। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি আমার ওস্তাদ শেখ নজরুল ইসলামের কাছে, শ্রদ্ধেয় দারাশিকো’র কাছে। পরবর্তীতে বিভিন্ন সময়ে যারা আমাকে সহযোগিতা করেছেন যেমন শ্রদ্ধেয় দেলোয়ার জাহান ঝন্টু, এজে মিন্টু, গাজী মাজহারুল আনোয়ার, অভিনেতা রাজীব, নূর হোসেন বলাই, উত্তম আকাশ’সহ আরো বেশ কয়েকজন। আমি অবশ্যই কৃতজ্ঞ আমাদের নন্দিত নায়িকা শাবানা আপার কাছেও। অভিনয় জীবনের সবচেয়ে বড়প্রাপ্তি দর্শকের ভালোবাসা, জীবন চলার পথে আমি এখনো দর্শকের ভালোবাসা পাচ্ছি। তবে অপ্রাপ্তি হলো মনের গহীন কোণে কষ্টতো আসলে রয়েইগেছে। আমি যেই সময়টাতে বেশকিছু ভালো ভালো গল্পের চমৎকার চরিত্রে অভিনয় করেছি। সেই সময়টাতে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান বন্ধ ছিলো। যদি তা না হতো তাহলে আমার বিশ্বাস ছিলো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার আমারও প্রাপ্তি হতো। কিন্তু দুর্ভাগ্য আমার। আবার আমি যখন খলনায়ক হিসেবে কাজ শুরু করলাম। তখন খলনায়ক’র জন্য ক্যাটাগরি ছিলোনা জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের। কিন্তু আমার মেয়ের অনুরোধে যখন এই ধরনের চরিত্রে অভিনয় ছেড়ে দিলাম, তারকিছুদিন পরেই এই ক্যাটাগরিতেও পুরস্কার প্রদান শুরু হলো। কী দুর্ভাগ্য আমার।’

ওমর সানী অভিনীত সবচেয়ে দর্শকপ্রিয় ছবিগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘চাঁদের আলো’,‘ বাংলার বধূ’,‘ আত্মঅহংকার’,‘ মহৎ’,‘ প্রেমের অহংকার’,‘ প্রেম গীত’, ‘হারানো প্রেম’,‘ লাট সাহেবের মেয়ে’,‘ মুক্তির সংগ্রাম’,‘ ক্ষুধা’ ইত্যাদি। খলনায়ক হিসেবে ওমর সানী প্রথম অভিনয় করেন ‘ওরা দালাল’ সিনেমায়। 

ঢাকার কেরানীগঞ্জে জন্ম নেয়া ওমর সানী ‘চাঁদের আলো’ সিনেমায় অভিনয় করে কোন পারিশ্রমিক পাননি বলেই জানান। ‘অগ্নিপথ’ সিনেমায় অভিনয় করে ৫০ হাজার টাকা পারিশ্রমিক পান প্রথম। ওমর সানীর গ্রামের বাড়ি বরিশালের গৌরনদীতে। তার ডাক নাম ইমরান। তার ওমর নামটি রাখেন পরিচালক জালাল উদ্দিন রুমী এবং সানী নামটি তিনি নিজেই রাখেন। এই দুই মিলিয়ে ওমর সানী। ওমর সানীর প্রবল বিশ্বাস বাংলাদেশের সিনেমার ব্যবসা আবার ঘুরে দাঁড়াবেই। ওমর সানী’র স্ত্রী প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী, তার দুই সন্তান ফারদিন ও ফাইজা। এখন পর্যন্ত তিনি প্রায় ১৭০টি সিনেমাতে অভিনয় করেছেন। 


© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com