রাজনীতি

শূন্য পদ পূরণে উদ্যোগ নেই বিএনপির

১২ সেপ্টেম্বর ২০২০

কামরুল হাসান

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির শূন্য পদ পূরণে কোনো উদ্যোগ নেই দলটির হাইকমান্ডের। খুব শিগগির দলটির কাউন্সিলের সম্ভাবনা নেই বলে এসব শূন্য পদে পদায়নও সম্ভব হচ্ছে না। দলের চেয়ারপারসন কিংবা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের বিশেষ ক্ষমতাবলে এসব পদে পদায়ন সম্ভব হলেও তা করা হচ্ছে না। দলটির অনেক কেন্দ্রীয় নেতাও দীর্ঘদিন ধরে নিষ্ফ্ক্রিয় অবস্থায় রয়েছেন। অনেকে বয়সের ভারে ন্যুব্জ। এসব পদও পুনর্গঠন করতে পারছে না দলটির হাইকমান্ড।

২০১৬ সালের ১৯ মার্চ বিএনপির ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল হয়। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী প্রতি তিন বছর অন্তর এ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। সে অনুযায়ী এক বছরের বেশি সময় ধরে মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে পড়েছে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি। নানা জটিলতায় পর্যবসিত দলটি কাউন্সিল করতে পারছে না। এ সময়ের মধ্যে দলের অনেক নেতা মারা গেছেন, অনেকে দল ত্যাগ করেছেন, অনেকে স্বেচ্ছায় রাজনীতি থেকে অবসরে গেছেন। আবার সর্বশেষ কাউন্সিলের সময় থেকেই দলটির অনেক পদ শূন্য রয়েছে। যেগুলোয় পরে আর পদায়ন করা হয়নি। সব মিলিয়ে প্রায় ৫০টি শূন্য পদ রয়েছে দলটিতে। আবার পদোন্নতি পেয়েছেন পাঁচ নেতা। শূন্য পদের মধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন ৩০ জন, পদত্যাগ করেছেন ১২ জনের ওপর এবং বহিস্কার হয়েছেন একজন। কয়েকজন নেতানেত্রী পদত্যাগ করলেও পরে দলীয় নির্দেশনায় তারা পদত্যাগপত্র তুলে নেন। দলের এসব শূন্য পদ কবে পূরণ হবে, তা নিশ্চিত নয়। আবার কবে নাগাদ দলের সপ্তম কাউন্সিল হবে, তা কেউ নিশ্চিত নন। তাই অচিরেই দলের কেন্দ্রীয় কমিটিতে রদবদল কিংবা পুনর্গঠন করা হবে বলে মনে করছেন না নেতারা।

বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির মোট সদস্য সংখ্যা ১৯ জন। ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল শেষে ১৭ জনের নাম ঘোষণা করা হয়েছিল। এর মধ্যে তিনজন মারা গেছেন। তারা হলেন- তরিকুল ইসলাম, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ এবং এম কে আনোয়ার। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও স্থায়ী কমিটির সদস্য তারেক রহমান লন্ডনে অবস্থান করছেন। মামলা জটিলতায় সালাহউদ্দিন আহমেদ রয়েছেন ভারতের শিলংয়ে। এ ছাড়া রাজনীতি থেকে অবসর নিয়েছেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান। দলের গুরুত্বপূর্ণ স্থায়ী কমিটির শূন্য পদে গত বছরের ১৯ জুন দুইজন ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে পদায়ন করা হয়েছে। সেই হিসাবে এখানে সদস্য সংখ্যা ১৫ জন। অর্থাৎ এখনও চারটি পদ শূন্য রয়েছে।

৩৭ জন ভাইস চেয়ারম্যান পদের মধ্যে আটটি পদ ফাঁকা রয়েছে। এর মধ্যে দুইজনকে স্থায়ী কমিটিতে পদায়ন করা হয়েছে। তিনজন মারা গেছেন, একজনকে বহিস্কার করা হয়েছে এবং দুইজন পদত্যাগ করেছেন। মারা যাওয়া তিনজন হলেন- ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকা, আবদুল মান্নান ও ব্যারিস্টার আমিনুল হক। এ ছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান এম মোর্শেদ খান ও মোসাদ্দেক আলী ফালু দল থেকে পদত্যাগ করেছেন। বিএনপির এই দুই নেতাই দেশের বাইরে অবস্থান করছেন। ইনাম আহমেদ চৌধুরী আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়ায় তাকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ফজলুর রহমান পটল, হারুন-অর রশীদ খান মুন্নু, আখতার হামিদ সিদ্দিকী, জাফরুল হাসান, নূরুল হুদা, কাজী আসাদুজ্জামান, কবির মুরাদ, সঞ্জীব চৌধুরী, ওয়াহিদুল ইসলাম ও এম এ হক মৃত্যুবরণ করেছেন। কোষাধ্যক্ষ মিজানুর রহমান সিনহা রাজনীতি থেকেই অবসর নিয়েছেন।

এ ছাড়া নির্বাহী কমিটির আইনবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক আবু সাইদ খোকন, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক বদরুজ্জামান খসরু, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পবিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ মোজাফফর হোসেন, কুমিল্লা বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আউয়াল খান মারা গেছেন। নির্বাহী কমিটির সদস্যদের মধ্যে মারা গেছেন স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, আহসান উল্লাহ হাসান, আবুল কাশেম চৌধুরী, এ এফ এম ইকবাল, মোজাহার হোসেন, মোজাহার আলী প্রধান, কামরুদ্দিন ইয়াহিয়া খান মজলিশ, সরোয়ার আজম খান, কাজী আনোয়ার হোসেন, শফিকুর রহমান ভূঁইয়া, চমন আরা, এম এম মতিন, এম এ মজিদ, মিয়া মোহাম্মদ সেলিম, কাজী সেকান্দার আলী ডালিম প্রমুখ।

বিএনপি থেকে পদত্যাগ করা অন্য নেতারা হলেন- সহ-সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মনির খান, সহ-অর্থনৈতিক বিষয়ক সম্পাদক শাহাবুদ্দিন আহমেদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য আলী আসগার লবী, মোবাশ্বের আলম ভূঁইয়া প্রমুখ। প্রয়াত ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল পরে যোগ দিয়েছিলেন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টিতে (এলডিপি)।

নির্বাহী কমিটির সদস্য থেকে রংপুর বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক হয়েছেন সাবেক ছাত্র ও যুবনেতা আবদুল খালেক। এ ছাড়া পদোন্নতি পেয়ে সহ-ব্যাংকিং বিষয়ক সম্পাদক করা হয়েছে খন্দকার মোক্তাদির হোসেন ও সহ-তথ্য ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক করা হয়েছে রিয়াজউদ্দিন আহমেদ নসুকে।

নির্বাহী কমিটির গুরুত্বপূর্ণ ছাত্র ও সহ-ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক পদ দুটি কমিটি ঘোষণার পর থেকেই ফাঁকা। নির্বাহী কমিটির সাতটি আন্তর্জাতিক সম্পাদকের মধ্যে দুটি ফাঁকা। সহ-যুববিষয়ক সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হলেও যুববিষয়ক সম্পাদকের পদটি এখনও ফাঁকা।

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দলের অনেক পদ শূন্য হয়েছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নেতারা মারা যাওয়ায় এসব শূন্য পদ সৃষ্টি হয়েছে। ইতোমধ্যে বেশ কিছু পদে নতুনদের জায়গা দেওয়া হয়েছে। সময়ের সঙ্গে অন্যগুলো পদেও পদায়ন হবে। দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান চাইলে কাউন্সিল ছাড়াও এসব পদায়ন করতে পারবেন।



© সমকাল ২০০৫ - ২০২০

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ (প্রিন্ট), +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ (অনলাইন) | ইমেইল: samakalad@gmail.com (প্রিন্ট), ad.samakalonline@outlook.com (অনলাইন)