বোকার মতো কাজ করেছি :নেইমার

১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

স্পোর্টস ডেস্ক

আমি কৃষ্ণাঙ্গ, একজন কৃষ্ণাঙ্গের সন্তান। আমার দাদা ও পূর্বপুরুষরাও কৃষ্ণাঙ্গ। এজন্য আমি গর্বিত। অন্য কারোর চেয়ে আমি নিজেকে আলাদা মনে করি না। গতকাল আমি চেয়েছিলাম ম্যাচের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিরা নিরপেক্ষভাবে অবস্থান করুন এবং এটা বুঝুন যে, পূর্বনির্ধারিত মনোভাবের আর জায়গা নেই

নেইমারের বর্ণবাদের শিকার হওয়ার অভিযোগের তদন্ত শুরু করে দিয়েছে লিগ ওয়ান শৃঙ্খলা কমিটি। গত রোববার মার্শেইয়ের কাছে ১-০ গোলে পিএসজির হেরে যাওয়া ম্যাচের আরও একটি ঘটনা নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। নেইমার যার বিরুদ্ধে বর্ণবাদী মন্তব্যে অভিযোগ এনেছেন মার্শেইয়ের সেই ফুটবলার আলভারো গঞ্জালেজকে নাকি থুতু মেরেছিলেন অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। এই দুটি ঘটনার পাশাপাশি আজ বুধবার শৃঙ্খলা কমিটির বৈঠকে রেফারির এতগুলো লাল কার্ড দেখানোর যৌক্তিকতা নিয়েও আলোচনা হবে। রোববারের ম্যাচে পরিস্থিতি সামলাতে নেইমারসহ পাঁচজনকে লাল কার্ড দেখান রেফারি। হলুদ কার্ড দেখেছেন ১৪ ফুটবলার।

ফরাসি ফুটবল ফেডারেশনের নিয়ম অনুসারে, বর্ণবিদ্বেষের অভিযোগ সত্যি হলে দশ ম্যাচ নিষিদ্ধ হতে পারেন আলভারো। ডি মারিয়ার বিপক্ষে ওঠা থুতু দেওয়ার অভিযোগ সত্য হলে তিনি ছয় ম্যাচ নিষিদ্ধ হতে পারেন। প্রতিপক্ষের ফুটবলারকে লাথি মারার জন্য পিএসজির লেভিন কুরোজাওয়া সাত ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা পেতে পারেন। আর বর্ণবিদ্বেষের অভিযোগ মিথ্যা হলে শাস্তির মুখে পড়তে পারেন নেইমার। তবে ফল যা-ই হোক, নিজ দলের খেলোয়াড়ের পাশে দাঁড়িয়েছে পিএসজি। এক বিবৃতিতে তারা নিজেদের অবস্থান পরিস্কার করেছে, 'পিএসজি খুবই আন্তরিকভাবে নেইমারকে সমর্থন দিচ্ছে। তিনি বলেছেন তার সঙ্গে প্রতিপক্ষের একজন খেলোয়াড় বর্ণবাদী আচরণ করেছেন। ক্লাব আবার ব্যাপারটা পরিস্কার করে বলতে চায়, সমাজের কোথাও বর্ণবাদের জায়গা নেই। না ফুটবলে, না আমাদের ব্যক্তিগত জীবনে। আমরা আশা করি এই জঘন্য আচরণের বিপক্ষে সোচ্চার হবে সবাই।' লিগের শৃঙ্খলা কমিটির ওপর পুরোপুরি আস্থা দেখিয়ে তদন্তে সহযোগিতারও আশ্বাস দিয়েছে পিএসজি।

এই ঘটনা নিয়ে নেইমার সোমবার রাতে ইনস্টাগ্রামে বিশাল এক বিবৃতি দিয়েছেন, 'ফুটবলে আগ্রাসন, অপমান করা, আবার মিটমাট করে নেওয়াটা খেলারই অংশ। এখানে বিরোধটা স্বাভাবিক, আপনি দয়াপরবশ হতে পারবেন না। এই সবকিছু খেলার অংশ। কিন্তু বর্ণবাদ কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।' তিনি আরও বলেন, 'আমার কি এটা (বর্ণবাদী মন্তব্য) এড়িয়ে যাওয়া উচিত ছিল? আমি এখনও জানি না... আজ ঠান্ডা মাথায় আমার মনে হয়েছে, সেটাই করা উচিত ছিল। কিন্তু তখন পরিস্থিতির বিচারে আমি ও আমার সতীর্থরা রেফারির কাছে সাহায্য চেয়েছিলাম, আমরা উপেক্ষিত হয়েছিলাম। আমি আমার সাজা (লাল কার্ড) মেনে নিয়েছি। কারণ আমার ফুটবলের পরিচ্ছন্ন পথটা অনুসরণ করা উচিত ছিল। আমার আশা, ওই ডিফেন্ডারেরও (আলভারো গঞ্জালেজ) সাজা হবে।' তবে ওই ঘটনায় জড়ানোর জন্য কিছুটা অনুশোচনায় ভুগছেন নেইমার, 'বর্ণবাদ আছে, বেশ ভালোভাবে আছে। কিন্তু আমাদের অবশ্যই এটা থামাতে হবে। আর না, যথেষ্ট হয়েছে! ওই ছেলেটি ছিল একটি বোকা। এই ঘটনায় জড়িয়ে আমি নিজেও বোকার মতো কাজ করেছি।'

নেইমার আরও যোগ করেন, 'আমি কৃষ্ণাঙ্গ, একজন কৃষ্ণাঙ্গের সন্তান। আমার দাদা ও পূর্বপুরুষরাও কৃষ্ণাঙ্গ। এজন্য আমি গর্বিত। অন্য কারোর চেয়ে আমি নিজেকে আলাদা মনে করি না। গতকাল আমি চেয়েছিলাম ম্যাচের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিরা (রেফারি ও সহকারী) নিরপেক্ষভাবে অবস্থান করুন এবং এটা বুঝুন যে, পূর্বনির্ধারিত মনোভাবের আর জায়গা নেই।' সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষদের রক্ষার জন্যই বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া উচিত বলেও মনে করছেন ব্রাজিলিয়ান এই তারকা।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২০

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ (প্রিন্ট), +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ (অনলাইন) | ইমেইল: samakalad@gmail.com (প্রিন্ট), ad.samakalonline@outlook.com (অনলাইন)