করোনায় আ'লীগ নেতা আখম জাহাঙ্গীরের মৃত্যু

প্রকাশ: ২৪ ডিসেম্বর ২০ । ২০:৩৯

সমকাল প্রতিবেদক/ দশমিনা ও গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

আখম জাহাঙ্গীর হোসাইন

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য, সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও সাবেক সংসদ সদস্য আখম জাহাঙ্গীর হোসাইন আর নেই। করোনায় আক্রান্ত হয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল (ইন্নালিল্লাহি---রাজিউন) করেছেন তিনি। তার বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও পটুয়াখালী-৩ (গলাচিপা-দশমিনা) আসনের চারবারের সংসদ সদস্য আখম জাহাঙ্গীর হোসাইন ও তার স্ত্রী সেলিনা হোসাইন করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ৩ ডিসেম্বর হাসপাতালে ভর্তি হন। পরে জাহাঙ্গীর হোসাইনের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে আইসিইউতে ভর্তি রাখা হয়েছিল তাকে। বিকেল সাড়ে ৪টায় মৃত্যু হয় তার। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়েসহ বহু আত্মীয়স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

আখম জাহাঙ্গীর হোসাইনের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। এক শোক বার্তায় মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, শুক্রবার সকাল ১০টায় রাজধানীর মিরপুর-১ মাজার রোডের প্রিয়াঙ্গণ হাউজিংয়ের বাসভবনে মরহুমের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর মরদেহ হেলিকপ্টারযোগে তার নিজ এলাকা পটুয়াখালীতে নেওয়ার পর বেলা ১২টায় দশমিনা কলেজ মাঠে দ্বিতীয়, বাদ জুম্মা গলাচিপা হাইস্কুল মাঠে তৃতীয় এবং বাদ আছর চর চন্দ্রাইল মোহাম্মদিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা মাঠে চতুর্থ ও শেষ জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে চর চন্দ্রাইল কবরস্থানে বাবা ও মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হবে তাকে।

এদিকে, প্রবীণ এই আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যুতে তার নিজ এলাকা পটুয়াখালীর দশমিনা ও গলাচিপার আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার মৃত্যু সংবাদে দূর-দূরান্ত থেকে তৃণমূল নেতাকর্মীরা উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়গুলোতে ভিড় জমান।

পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের চরচন্দ্রাইল গ্রামে জন্ম নেওয়া আখম জাহাঙ্গীর হোসাইনের রয়েছে দীর্ঘ ও বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন। স্বাধীনতার আগে গলাচিপা মডেল সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পড়াকালে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন তিনি। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগে যুক্ত হন। পঁচাত্তরে জাতির পিতার নির্মম হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে তিনি ছিলেন প্রথম সারির লড়াকু সৈনিক।

তিনি ১৯৮১-৮৩ মেয়াদে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হন। পরে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে দলের সহ-দপ্তর সম্পাদক হন। পটুয়াখালী-৩ (গলাচিপা-দশমিনা) আসন থেকে ১৯৯১, ১৯৯৬ ও ২০০১ সালের জাতীয় নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারে তাকে বস্ত্র প্রতিমন্ত্রীর দ্বায়িত্ব দেওয়া হয়। এছাড়া বিভিন্ন সময় সংসদীয় স্থায়ী বিভিন্ন কমিটির সদস্য ছিলেন।

২০০৭ সালে দেশে জরুরি অবস্থা জারির পর আওয়ামী লীগে 'সংস্কারপন্থী' হিসেবে আখম জাহাঙ্গীরের নামও আসে। ফলে ২০০৮ সালের নির্বাচনে দলের মনোনয়ন পাননি তিনি। পরে নিজের কাজের জন্য ভুল স্বীকার করলে ২০১৪ সালের নির্বাচনে আবারও নৌকার মনোনয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। সর্বশেষ ২০১৮ সালের নির্বাচনে তিনি দলীয় মনোনয়ন না পেলেও তাকে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য করা হয়েছিল।

আখম জাহাঙ্গীর হোসাইনের মৃত্যুতে আরও শোক জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও ১৪ দলের সমন্বয়ক-মুখপাত্র আমির হোসেন আমু এমপি, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হক, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শম রেজাউল করিম, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান, বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ, পানিসম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর, পটুয়াখালী-৩ (দশমিনা-গলাচিপা) আসনের সংসদ সদস্য এসএম শাহজাদা প্রমুখ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্য আখম জাহাঙ্গীর হোসাইনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ. কে. আজাদ ও মহাসচিব রঞ্জন কর্মকারসহ কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যরা। এক শোক বিবৃতিতে তার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান তারা।


© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com