মোহামেডানে বাদল রায় ফাউন্ডেশন

২৩ ডিসেম্বর ২০ । ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

১৯৭৭ সালে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবে যোগ দিয়েছিলেন। ১৯৯০ সালে ফুটবল থেকে অবসরে যাওয়ার আগ পর্যন্ত এই ক্লাবের জার্সিতেই খেলেছিলেন প্রয়াত বাদল রায়। লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে গত ২২ নভেম্বর পৃথিবী ছেড়ে চলে যান কিংবদন্তি এ ফুটবলার। ঠিক এক মাস পর গতকাল মোহামেডান প্রাঙ্গণে এসে বাবা বাদল রায়ের স্মৃতি ধরে রাখতে গিয়ে পরিবারের পরিকল্পনার কথা জানান তার মেয়ে গঙ্গোত্রী রায় বৃষ্টি। মোহামেডানে বাদল রায়ের নামে ফাউন্ডেশন করা হবে বলে জানান তিনি। ঘরোয়া ফুটবলের নতুন মৌসুমের জন্য ক্লাবের জার্সি স্পন্সরের লোগো উন্মোচন অনুষ্ঠানে এসে বৃষ্টি বলেন, 'মোহামেডানের সঙ্গে আমার বাবা বাদল রায়ের ছিল আত্মার সম্পর্ক। সবাই বলতেন, আমার বাবা ছিলেন তাদের মাথার ওপর ছাদের মতো। বাবা আজ আমাদের মাঝে নেই। কিন্তু তার স্মৃতি, তার কর্মের জন্য তিনি সবার হৃদয়ে চিরজাগরুক হয়ে থাকবেন। এজন্য আমরা পরিবারের বাকি সবাই মিলে একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সেটা হলো মোহামেডান ক্লাবের সঙ্গে যেন আমার বাবার সম্পর্ক চিরদিন বজায় থাকে, সেজন্য আমরা তার নামে একটি ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করব। যার নাম হবে বাদল ফাউন্ডেশন।'

বাদল ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা মূলত বৃষ্টিরই। তার মা মাধুরী রায় থাকবেন ফাউন্ডেশনের প্রধান। তাকে সহায়তা করতে একটি কার্যকরী কমিটি গঠন করা হবে। আর এই ফাউন্ডেশনের কাজ মূলত ফুটবল নিয়ে হবে বলে জানান বাদল রায়ের মেয়ে বৃষ্টি, 'এই ফাউন্ডেশনটি মোহামেডান ক্লাব প্রাঙ্গণেই প্রতিষ্ঠিত হবে। এই ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম হবে অসহায়, দুস্থ, চোটগ্রস্ত ফুটবলারদের সাহায্য করা। ধীরে ধীরে ফাউন্ডেশনের কার্যক্রমের পরিধি আরও বাড়বে।

২০২০-২১ মৌসুমের মোহামেডান ফুটবল দলের জার্সির স্পন্সরের (ওরিয়ন গ্রুপ) লোগো উন্মোচন, মোহামেডানের অধিনায়ক-মিডফিল্ডার জাপানের উরু নাগাতাকে অধিনায়কত্বের ব্যাজ প্রদান, ক্লাবের অভ্যন্তরে জিম ও ফিজিও সেন্টার উদ্বোধনের ঘোষণা দেওয়া হয়। মঙ্গলবার ক্লাব প্রাঙ্গণে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মোহামেডানের সাবেক তারকা ফুটবলাররা, সংগঠক, পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান ওরিয়ন গ্রুপের কর্মকর্তা।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com